আমানত হলের প্রাধ্যক্ষ নির্মল কুমার সাহাকে আহ্বায়ক করে গঠিত চার সদস্যের কমিটিতে রয়েছেন সহকারী প্রক্টর মো. আহসানুল কবীর, ডেপুটি রেজিস্ট্রার রশীদুল হায়দার জাবেদ ও ডেপুটি রেজিস্ট্রার সৈয়দ ফজলুল করিম। কমিটিতে ফজলুল করিমকে সদস্যসচিব করা হয়েছে।

সম্প্রতি নিয়োগ–বাণিজ্যের লেনদেন নিয়ে ফোনালাপ ফাঁস হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের নিম্নমান সহকারী মানিক চন্দ্র দাশ ও একজন নিয়োগপ্রার্থীর মধ্যে ওই কথোপকথন হয়েছিল। এতে চাকরি দেওয়ার কথা বলে তিনজনের কাছ থেকে ৮ লাখ ১০ হাজার টাকা নেওয়ার বিষয়টি উঠে এসেছে।

প্রায় ছয় মাস আগেও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়োগ-বাণিজ্য নিয়ে ফোনে কথোপকথন ফাঁস হয়েছিল। তখন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগে আর্থিক লেনদেন নিয়ে পাঁচটি ফোনালাপ ফাঁস হয়েছিল। এসব ফোনালাপ ছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য শিরীণ আখতারের ব্যক্তিগত সহকারী খালেদ মিছবাহুল, কর্মচারী আহমদ হোসেন ও দুই নিয়োগপ্রার্থীর।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন