গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের উপদেষ্টা মনজুরুল আহসান খান সম্মেলনের উদ্বোধন করেন। সর্বব্যাপী জুলুমের বিরুদ্ধে শ্রমিক-জনতার গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘নিম্ন আয়ের মানুষ উদয়-অস্ত খেটেও স্বাভাবিক চাহিদামতো খাবার জোগাড় করতে পারছে না। অনেকে ফুলেফেঁপে উঠলেও দেশের মানুষ খাদ্যসংকটে পড়ে আছে।’  

উদ্বোধনী সমাবেশ শেষে মিছিল বের করা হয়। পরে নগরীর বিএমএ মিলনায়তনে সম্মেলনে আগত অতিথিরা বক্তব্য দেন। সেখানে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সাবেক সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, বিজিএমইএর মতো প্রতিষ্ঠানগুলো শ্রমিকদের শোষণ করেও ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছে। সরকার তাদের মদদ দেয়। কারণ, এই সরকার মালিকের সরকার; জনগণ-শ্রমিকের সরকার না।

সভাপতির বক্তব্যে গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি মন্টু ঘোষ বলেন, ‘শ্রমিকদের শ্রমে-ঘামে উপার্জিত অর্থ বুর্জোয়া মালিকেরা ভোগবিলাসে উড়িয়ে দিচ্ছে। গার্মেন্টস শ্রমিকের ন্যূনতম মজুরি ২০ হাজার টাকা, অন্যান্য ভাতাসহ নতুন মজুরি ঘোষণা এবং সোয়েটারের পিসরেটসহ সব গ্রেডে একই হারে মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে আন্দোলনে আমাদের জয়লাভ করতে হবে।’

এ সময় আরও বক্তব্য দেন বিশ্ব ট্রেড ইউনিয়ন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক প্যাম্বিস কিরিৎসিস, সিপিবির কেন্দ্রীয় নেতা আবদুল্লাহ আল কাফী, অষ্টম কেন্দ্রীয় সম্মেলন প্রস্তুতি পরিষদের আহ্বায়ক সাদেকুর রহমান, সদস্যসচিব জিয়াউল কবীর প্রমুখ।