বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সদস্যপদ স্থগিতের কারণে প্রতিষ্ঠানগুলো ১০ হাজার ডলার বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয় করতে পারবে না, যা ইক্যাবের সদস্যরা পারে। এ ছাড়া জোটবদ্ধ অন্য সুবিধাগুলো থেকে বঞ্চিত হবে তারা।

ইক্যাবের সহসভাপতি মোহাম্মদ সাহাবউদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, সদস্যপদ স্থগিতের কারণে প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যবসা পরিচালনাসংক্রান্ত কোনো সমস্যায় পড়বে না। তবে গ্রাহকেরা একটা বার্তা পাবে যে তারা নিয়মগুলো মানছে না। অন্য ই–কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতি দায়িত্বশীলতা থেকে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইক্যাব।

গত ১৮ জুলাই ইক্যাবের নোটিশ পাওয়ার পর তিন মাস সময় চেয়েছিল ইভ্যালি। সাহাবউদ্দিন বলেন, ‘ইভ্যালি দীর্ঘদিন ধরে বারবার সময় নেওয়ার পরও ক্রেতাদের সমস্যার সমাধান হয়নি। ইক্যাবের ওপর নির্দেশ ছিল ১৫ দিন পরপর তাদের অবস্থান জানান দেওয়ার। ইভ্যালি আমাদের প্রয়োজনীয় তথ্য দেয়নি।’

এ ছাড়া ডিজিটাল কমার্স পরিচালনা নির্দেশিকা ২০২১ প্রকাশিত হওয়ার পর ১০ দিনের মধ্যে পণ্য ডেলিভারি করেনি, এমনকি ইক্যাবের অন্য সদস্যদের পাওনা পরিশোধের বিষয়ে সন্তোষজনক পদক্ষেপ না নেওয়ার অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে ইভ্যালির বিরুদ্ধে।

ধামাকা শপিং পূর্বনির্দেশনা ছাড়া ব্যবসায়ী কার্যক্রম বন্ধ করায় এবং অন্য দুটি কোম্পানি ইক্যাবের কারণ দর্শানোর চিঠির জবাব না দেওয়ায় তাদের সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছে।

এর আগে গত ২৬ আগস্ট ইক্যাব একই কারণে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ই-অরেঞ্জ ডটকম, টোয়েন্টিফোর টিকেটি ডটকম, গ্রিন বাংলা ই-কমার্স লিমিটেড, এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড অ্যাগ্রো ফুড অ্যান্ড কনজ্যুমার লিমিটেডের সদস্য পদ স্থগিত করে।

বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন