দাম বাড়ানোর কারণ হিসেবে সংস্থাটি বলছে, বাজারে মসুর ডালের দাম বেড়েছে, তাই কিছুটা মূল্য সমন্বয় করতে হয়েছে। নিম্ন ও সাধারণ আয়ের মানুষের জন্য আবারও সাশ্রয়ী মূল্যে পণ্য বিক্রির জন্য ২০২১-২২ অর্থবছরে অষ্টমবারের মতো ট্রাক সেল কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছে সংস্থাটি। আজ বুধবার টিসিবির এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বাজারের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম স্থিতিশীল রাখতে ও করোনাকালে সাধারণ আয়ের মানুষকে সহায়তার জন্য এ কার্যক্রম চালাবে টিসিবি। সর্বশেষ গত ২৭ জানুয়ারি ট্রাকে টিসিবির পণ্য বিক্রি কার্যক্রম শেষ হয়।

কয়েক দিন বিরতির পর আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া ট্রাকে পণ্য বিক্রির কার্যক্রম চলবে ২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। দেশের সব মহানগরী, জেলা ও উপজেলায় ৪০০ থেকে ৪৫০টি ভ্রাম্যমাণ ট্রাকে করে পণ্য বিক্রি করা হবে। তবে শুক্রবার এ কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।

টিসিবির ট্রাক থেকে একজন ক্রেতা প্রতি কেজি চিনি ৫৫ টাকায়, মসুর ডাল ৬৫ টাকায়, সয়াবিন তেল প্রতি লিটার ১১০ টাকায় এবং পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৩০ টাকায় কিনতে পারবেন। একজন ক্রেতা সর্বনিম্ন দুই থেকে সর্বোচ্চ পাঁচ কেজি পেঁয়াজ, দুই কেজি মসুর ডাল, দুই কেজি চিনি ও পাঁচ লিটার সয়াবিন তেল কিনতে পারবেন।

এ বিষয়ে টিসিবির ঢাকা কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন কার্যনির্বাহী মো. হ‌ুমায়ূন কবির বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে টিসিবির পণ্যের দাম নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। আমরা শুধু বিক্রি করি। বাজারের চেয়ে দাম কম হয়ে গেলে কালোবাজারির শঙ্কা থাকে। এ জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ক্রয়মূল্য, বাজারের প্রচলিত মূল্য ও ভর্তুকির সঙ্গে সমন্বয় করে এই দাম নির্ধারণ করে। বাজারে দাম কমলে টিসিবির ডালের দামও কমবে বলে জানান তিনি।

বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন