বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ রোববার অনলাইনে সংবাদ সম্মেলনে এ বছরের তৃতীয় প্রান্তিকের ব্যবসায়িক পরিস্থিতি তুলে ধরে রবি। এতে কোম্পানিটির ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এম রিয়াজ রশীদ বলেন, ‘মুনাফা বাড়তে থাকায় আমরা খুবই আনন্দিত। তবে এটা খুবই হতাশাজনক যে প্রথম ৯ মাসে আমাদের কর–পরবর্তী মুনাফা ১৬৭ কোটি টাকার পরিবর্তে ২৮৯ কোটি টাকা হতে পারত, যদি ২ শতাংশ ন্যূনতম টার্নওভার (লেনদেন) কর আমাদের ওপর আরোপ করা না হতো।’ তিনি বলেন, এই করের কারণে শেয়ারধারীরা কোম্পানিতে তাঁদের বিনিয়োগের বিপরীতে প্রাপ্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

রবি জানিয়েছে, চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের তুলনায় রবির ফোর–জি গ্রাহকসংখ্যা তৃতীয় প্রান্তিকে বৃদ্ধি পেয়েছে ১২ দশমিক ৭ শতাংশ। তবে ২০২০ সালের একই প্রান্তিকের তুলনায় ফোর–জি গ্রাহকসংখ্যা ৫১ শতাংশ বেড়েছে। মোট ৫ কোটি ৩০ লাখ গ্রাহকের মধ্যে প্রায় ২ কোটি ২৪ লাখ গ্রাহক ফোর–জি সেবার আওতায় এসেছে। এ ছাড়া অপারেটরটির ৭৪ শতাংশ গ্রাহক ইন্টারনেট ব্যবহার করেন।

চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে রবির রাজস্ব আয় ২ হাজার ৮৫ কোটি টাকায় পৌঁছেছে, এ আয় দ্বিতীয় প্রান্তিক থেকে ২ দশমিক ৭ শতাংশ বেশি। আর গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় ৭ দশমিক ৮ শতাংশ বেশি। চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে (জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর) রবির রাজস্ব দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৯৭ কোটি টাকা।

বছরের প্রথম ৯ মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর) রবি রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দিয়েছে ৩ হাজার ৩৭৩ কোটি টাকা, যা এই সময়ে কোম্পানির মোট রাজস্বের ৫৫ দশমিক ৬ শতাংশ।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে গতকাল রোববার রবির শেয়ারের দাম দাঁড়িয়েছে ৪০ টাকা। মুনাফা বাড়লেও দামের তেমন কোনো হেরফের হয়নি শেয়ারবাজারে।

বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন