বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সালমান এফ রহমান ২২ সদস্যের একটি উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিদল নিয়ে সৌদি আরবে যান। সফরকালে সৌদি সরকারের উচ্চপর্যায়ের ব্যক্তিদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকে অর্জিত অগ্রগতি তিনি সংবাদমাধ্যমকে অবহিত করেন।

সালমান এফ রহমান জানান, তিনি সৌদি পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের আওতায় বাংলাদেশে বিনিয়োগের অনুরোধ জানালে দেশটির বাণিজ্যমন্ত্রী ইতিবাচক মত দেন। এই তহবিলের আওতায় ঢাকা থেকে পায়রা বন্দর পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণ ও কক্সবাজারকে আন্তর্জাতিক মানের পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে বিনিয়োগের আহ্বান জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর এই উপদেষ্টা সৌদি বিনিয়োগমন্ত্রী খালিদ আল ফালিহর সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে বাংলাদেশের নেওয়া পদক্ষেপগুলো বর্ণনা করেন। পাশাপাশি সৌদি বিনিয়োগকারীদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী একটি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল করার প্রস্তাব দেন। সৌদি বিনিয়োগমন্ত্রী বাংলাদেশের এই প্রস্তাবকে স্বাগত জানান।

সালমান এফ রহমান জানান, সরকারি–বেসরকারি অংশীদারত্বে সৌদি বিনিয়োগের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে খসড়া সমঝোতা স্মারক চূড়ান্ত করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। সমঝোতা স্মারকটি সই হলে বাংলাদেশের অবকাঠামোসহ বিভিন্ন খাতে সৌদি বিনিয়োগের সুযোগ প্রসারিত হবে। এ সময় সৌদি বিনিয়োগমন্ত্রী জানান যে সমঝোতা স্মারকটি চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে এবং তা দ্রুত সই হবে বলে তিনি প্রত্যাশা করেন। সৌদি মন্ত্রী বিশেষায়িত অর্থনৈতিক অঞ্চলে খাতভিত্তিক বিনিয়োগের বিষয়ে সহযোগিতা চুক্তি বা সমঝোতা স্মারক সইয়ের ওপর জোর দেন।

সৌদি বিনিয়োগমন্ত্রীকে আগামী ২৮ ও ২৯ নভেম্বর বাংলাদেশে অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ শীর্ষ সম্মেলনে যোগদানের অনুরোধ জানান সালমান এফ রহমান। এ সময় মন্ত্রী খালিদ আল ফালিহ তা গ্রহণ করেন।

সৌদি আরবের পরিবহনমন্ত্রী সালেহ আল জাসেরের সঙ্গেও বৈঠক করেন সালমান রহমান। এ সময় তিনি ঢাকা থেকে পায়রা বন্দর পর্যন্ত রেললাইন নির্মাণে সৌদি বিনিয়োগ প্রত্যাশা করেন। তিনি বলেন, পরিবহন খাতে সহযোগিতা বৃদ্ধির বিষয়ে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক সই করা যেতে পারে। এ সমঝোতা স্মারকের অধীনে দক্ষতাবিনিময়, প্রশিক্ষণ ও সহযোগিতার সম্ভাব্য ক্ষেত্রগুলো অনুসন্ধান করে দেখা যেতে পারে। এ ব্যাপারে সৌদি পরিবহনমন্ত্রী সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা রিয়াদ চেম্বার অব কমার্সের সঙ্গেও বৈঠক করেছেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ সৌদি বিনিয়োগকারীদের জন্য অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সব সহযোগিতা নিশ্চিত করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

উপদেষ্টা দুই দেশের চেম্বার কর্মকর্তাদের পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধির জন্য দ্বিপক্ষীয় সফর ও বৈঠকের ওপর গুরুত্ব দেন। বাংলাদেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে সৌদি আরবকে সহযোগিতা বাড়াতে অনুরোধ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ ইউসুফ হারুন ও বাংলাদেশ সরকারি-বেসরকারি অংশীদারত্ব কর্তৃপক্ষের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সচিব) সুলতানা আফরোজ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন