ভারত সরকারের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, নিষেধাজ্ঞার আগে ঋণপত্র খোলা হয়েছে, এমন গম আসতে বাধা নেই। নিয়ম অনুযায়ী, আমদানির ঋণপত্র খোলার আগে সরবরাহকারীদের সঙ্গে চুক্তি করতে হয়। ভারতীয় সরবরাহকারীদের সঙ্গে আমাদের ব্যবসায়ীদের চুক্তি করা হয়েছে, এমন গমের পরিমাণ আনুমানিক পাঁচ লাখ টন হতে পারে। চুক্তি করা গম যাতে দেশে আনা যায়, তার উদ্যোগ নিতে হবে সরকারকে। নিষেধাজ্ঞার প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, প্রতিবেশী দেশগুলো, যারা নিজেদের খাদ্যনিরাপত্তার চাহিদা পূরণের চেষ্টা করছে, তাদের অনুরোধে গম রপ্তানির অনুমতি বিবেচনায় থাকবে।

এখন ভারত সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে প্রথমে চুক্তি করা গম যাতে আসে, সে ব্যবস্থা নিতে হবে আমাদের সরকারকে। এটা নিশ্চিত করা গেলে দাম বাড়লেও আগামী দুই-চার মাস গমের জোগানে কোনো সমস্যা হবে না। কারণ, আমাদের দেশীয় ফলন উঠছে এখন। আবার তিন-চার মাস পর বিভিন্ন দেশে ফলন আসবে। পশ্চিম ইউরোপের দেশগুলো, কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রের ফলন আসবে বাজারে।

নিয়ম অনুযায়ী, আমদানির ঋণপত্র খোলার আগে সরবরাহকারীদের সঙ্গে চুক্তি করতে হয়। ভারতীয় সরবরাহকারীদের সঙ্গে আমাদের ব্যবসায়ীদের চুক্তি করা হয়েছে, এমন গমের পরিমাণ আনুমানিক পাঁচ লাখ টন হতে পারে।

এ ছাড়া আরেকটি বিষয়ে নজর দেওয়া উচিত সরকারের। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের পর দেশ দুটি থেকে গম আমদানি বন্ধ হয়ে গেছে। ইউক্রেন থেকে আমদানির সুযোগ না থাকলেও রাশিয়া থেকে গম আনার সুযোগ আছে। তৃতীয় দেশ হয়ে রাশিয়া গম রপ্তানি করছে। আমাদের ব্যাংকগুলো এখন রাশিয়ায় উৎপাদিত গম আমদানির ঋণপত্র খোলার সুযোগ দিচ্ছে না। পরিস্থিতি যেহেতু জটিল হচ্ছে, তাই অন্তত নিজেদের খাদ্য সুরক্ষার জন্য রাশিয়া থেকে গম আমদানিতে বাধা তুলে দেওয়া উচিত।

ভারত সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে প্রথমে চুক্তি করা গম যাতে আসে, সে ব্যবস্থা নিতে হবে আমাদের সরকারকে। এটা নিশ্চিত করা গেলে দাম বাড়লেও আগামী দুই-চার মাস গমের জোগানে কোনো সমস্যা হবে না।

ভারত রপ্তানি বন্ধের পর স্বাভাবিকভাবে বিশ্বজুড়ে গমের দাম বাড়তে পারে। তবে জোগান ভালো থাকলে দাম বাড়লেও সমস্যা হবে না। দাম নিয়ন্ত্রণের জন্য সরকার আরও একটি উদ্যোগ নিতে পারে। সেটি হলো নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ক্ষেত্রে ডলারের বিনিময় মূল্য বা দাম বেঁধে দেওয়া। এটি হলে ডলারের দামের জন্য এখন যে কেজিপ্রতি ৮-১০ টাকা দাম বেড়ে যাচ্ছে, তা হবে না। অর্থাৎ সরকার কিছু উদ্যোগ নিলেই গমের বাজারের সম্ভাব্য সংকট ঠেকানো সম্ভব।

বিশ্লেষণ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন