default-image

বর্তমান করোনা পরিস্থিতির মধ্যে চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম সাত মাসে পণ্য রপ্তানি আয় ১ শতাংশ কমে যাওয়ায় নিরানন্দ হওয়ার কিছু নেই। মহামারি ভাইরাসের দ্বিতীয় সংক্রমণে রপ্তানিতে চাপ পড়ার আশঙ্কা থাকলেও এখন পর্যন্ত ভারসাম্যপূর্ণ অবস্থান রয়েছে।

আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে চলতি অর্থবছরে পণ্য রপ্তানি ৮ শতাংশ কমে যাবে, এমন পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। সেই তুলনায় আমরা পণ্য রপ্তানিতে ভালোই করছি বলা যায়। আমাদের প্রধান রপ্তানি খাতের মধ্যে নিট পোশাক ভালো করছে। চলতি অর্থবছরের প্রথম সাত মাসে নিট পোশাকের রপ্তানি ৩ দশমিক ৮৪ শতাংশ বেড়েছে। ওভেন পোশাকের রপ্তানি ১০ দশমিক ৮৫ শতাংশ কমলেও আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। বর্তমান বাস্তবতায় সেটি কমে যাওয়াটা খুবই স্বাভাবিক। আশা করছি শিগগিরই ওভেন পোশাকের রপ্তানি বৃদ্ধি পাবে।

বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ক্ষমতা গ্রহণ করার পর যেসব উদ্যোগ নিয়েছেন, তাতে আশা করা যায়, দ্রুত যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতি চাঙা হবে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) দেশগুলোতে ব্যাপক হারে করোনা টিকা দেওয়া হচ্ছে। এর ফলে শিগগিরই বড় দুই বাজারের (যুক্তরাষ্ট্র ও ইইউ) মানুষজন স্বাভাবিক জীবনে ফেরার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। সেটি হলে অর্থনীতিও ইতিবাচক ধারায় ফিরবে। অন্যদিকে মিয়ানমারের বর্তমান অচলাবস্থা দীর্ঘায়িত হলে এবং চীন থেকে ক্রেতারা কিছুটা ফিরে এলে আমাদের পণ্য রপ্তানি দ্রুততম সময়ের মধ্যে ভালো অবস্থায় ফিরবে।

বিশ্লেষণ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন