default-image

এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ৬৯ শতাংশ গ্রাহক নগদ লেনদেন কমাতে চান। ৬৮ শতাংশ গ্রাহক জানিয়েছেন, আগামী বছরগুলোয় ডিজিটাল ও মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমে তাঁরা লেনদেন করবেন। মাস্টারকার্ডের সাম্প্রতিক এক জরিপে এসব তথ্য উঠে এসেছে। তার ভিত্তিতে নিউ পেমেন্টস ইনডেক্স বা নতুন লেনদেন সূচক প্রকাশ করেছে কার্ড সেবাদানকারী এ প্রতিষ্ঠানটি।

মাস্টারকার্ডের জরিপের তথ্য গতকাল মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হয়। চারটি অঞ্চলের ১৮টি দেশের ১৫ হাজার ৫৬৯ গ্রাহককে অনলাইনে সাক্ষাৎকার নিয়ে জরিপটি করা হয়েছে। এতে অস্ট্রেলিয়া, ভারত, থাইল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ব্রাজিল, মেক্সিকো, সংযুক্ত আরব আমিরাত, মিসর, সৌদি আরব, নাইজেরিয়া, কেনিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ১ হাজারের বেশি গ্রাহক অংশ নেন।

জরিপে অংশ নেওয়া ৮০ শতাংশ গ্রাহক জানিয়েছেন, সশরীর ও অনলাইনে কেনার সুযোগ রয়েছে এমন দোকানই তাঁদের বেশি পছন্দ। যেসব বিক্রেতা তাঁদের প্রতিষ্ঠানে সর্বাধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর লেনদেনের সুযোগ দেন সেগুলোতেই কেনাকাটা করতে চান ৬৯ শতাংশ গ্রাহক। অন্যদিকে যেসব প্রতিষ্ঠানে কোনো ধরনের ইলেকট্রনিক পেমেন্ট বা প্রযুক্তিনির্ভর লেনদেনের সুযোগ নেই সেগুলো এড়িয়ে চলেন ৬০ শতাংশ গ্রাহক।

বিজ্ঞাপন

জরিপের তথ্য দিয়ে মাস্টারকার্ড বলছে, চলমান করোনার কারণে এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের মানুষ ধীরে ধীরে প্রযুক্তিনির্ভর লেনদেনে আগ্রহী হয়ে উঠছেন। এই অঞ্চলের দেশগুলোর ৯৪ শতাংশ মানুষ আগামী বছরগুলোতে লেনদেনের ক্ষেত্রে কিউআর কোড, ডিজিটাল বা মোবাইল ওয়ালেট, ক্রিপ্টোকারেন্সি ও বায়োমেট্রিকস সেবার যেকোনো একটি ব্যবহারের কথা বিবেচনা করবে। ৮৪ শতাংশ গ্রাহক জানিয়েছেন, বিল পরিশোধের ক্ষেত্রে তাঁদের কাছে এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি বিকল্প ব্যবস্থা আছে।

মাস্টারকার্ডের এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রোডাক্টস অ্যান্ড ইনোভেশন বিভাগের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট সন্দীপ মালহোত্রা বলেন, ভোক্তাদের আকাঙ্ক্ষা ও পছন্দের কারণেই মূলত তাদের লেনদেন–সংক্রান্ত আচরণে পরিবর্তন এসেছে। ৮৫ শতাংশ গ্রাহক জানিয়েছেন, তাঁরা যখন যেভাবে চান সেভাবেই কেনাকাটা করতে চাচ্ছেন।

ব্যাংক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন