উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। গতকাল ব্র্যাক ব্যাংকের পক্ষ থেকে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।  

সংবাদ সম্মেলনের পর এক বিজ্ঞপ্তিতে ব্র্যাক ব্যাংক জানিয়েছে, বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় টেকসই ব্যাংকগুলোর অর্ধশতাধিক পরিচালক, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহীরা এ সম্মেলনে অংশ নেবেন। তাঁরা নির্ভরযোগ্য ও নিরাপদ ভবিষ্যতের জন্য মূল্যবোধভিত্তিক ও টেকসই ব্যাংকিংয়ের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে আলোচনা করবেন।

সম্মেলনে অংশ নেওয়া প্রতিনিধিরা ব্যাংকিং শিল্পে গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন, মূল্যবোধভিত্তিক ব্যাংকিংয়ের তাৎপর্য, কার্বন নিঃসরণ হ্রাস, আর্থিক অন্তর্ভুক্তি, ক্ষুদ্রঋণ, টেকসই সংযোগ স্থাপন, জনসম্পদ ও সাংগঠনিক রূপান্তর ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা করবেন।

এ বিষয়ে ব্র্যাক ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী সেলিম আর এফ হোসেন বলেন, ‘এ বার্ষিক সম্মেলনের মাধ্যমে আরও বেশিসংখ্যক মানুষের কাছে মূল্যবোধভিত্তিক ব্যাংকিংয়ের বার্তাটি ছড়িয়ে দিতে পারব আমরা।

এতে বাংলাদেশসহ পৃথিবীর অন্যান্য দেশেও মূল্যবোধভিত্তিক ব্যাংকিং বাড়বে। পাশাপাশি সবুজ অর্থায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশের কার্বন নিঃসরণ হ্রাসের ক্ষেত্রেও জনমত তৈরিতে এ সম্মেলন প্রভাব রাখবে।’

যুক্তরাষ্ট্রের সানরাইজ ব্যাংকসের প্রধান নির্বাহী ও জিএবিভির প্রধান ডেভিড রাইলিং বলেন, ‘করোনা শুরুর পরে এটিই প্রথম সশরীর বৈশ্বিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। বর্তমানে চলমান একাধিক বৈশ্বিক সংকটের মুখে আমরা কীভাবে কার্যকরভাবে সাড়া দিতে পারি, তা নিয়ে আলোচনা হবে সম্মেলনে।’