এ পুনঃ অর্থায়ন তহবিল থেকে ব্যাংকগুলো দশমিক ৫০ শতাংশ হারে অর্থ নিতে পারবে। গ্রাহক পর্যায়ে সুদ হবে সর্বোচ্চ ৪ শতাংশ। ধান চাষ, মৎস্য চাষ, শাকসবজি, ফল ও ফুল চাষ, প্রাণিসম্পদ খাতের আওতায় পোলট্রি ও দুগ্ধ উৎপাদনে কৃষকেরা ঋণ নিতে পারবেন। এসব ঋণে গ্রেস পিরিয়ড হবে সর্বোচ্চ ৩ মাস। আর পুরো টাকা পরিশোধে আরও ১৫ মাস সময় পাবেন কৃষকেরা। ব্যাংক নিজে কৃষক পর্যায়ে এই ঋণ বিতরণ করবে।

ক্ষুদ্র, প্রান্তিক ও বর্গাচাষিদের অনুকূলে ধান, শাকসবজি, ফল ও ফুল চাষের জন্য শুধু ফসল বন্ধক রেখে জামানতবিহীন সর্বোচ্চ ২ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ বিতরণ করা যাবে।
বাংলাদেশ ব্যাংক জানিয়েছে, এ পুনঃ অর্থায়ন তহবিলটি কৃষি খাতে অর্থায়নের ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলোর জন্য সহায়ক হবে। কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে আশা করছে বাংলাদেশ ব্যাংক।