বিজ্ঞাপন

ডিএসইতে প্রকাশিত তথ্যে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রে লিয়াজোঁ কার্যালয় খোলার জন্য কোম্পানিটি পাঁচ লাখ মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করতে চায়, বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ সোয়া চার কোটি টাকা। বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদনের পর এ অর্থ বিনিয়োগ করা হবে বলে জানিয়েছে কোম্পানিটি। যুক্তরাষ্ট্র ছাড়া অন্য যেসব দেশে কোম্পানিটি লিয়াজোঁ কার্যালয় খুলতে চায়, সেগুলো হলো ভারত, নেপাল, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই) ও দক্ষিণ কোরিয়া। তবে এ চার দেশে কার্যালয় খুলতে কোম্পানিটি কত টাকা বিনিয়োগ করবে, তা জানানো হয়নি। বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদনের পর এসব দেশে কার্যালয় খোলা ও তার জন্য বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

ওয়ালটনের একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বৈশ্বিক বাজারে নিজেদের অবস্থান শক্ত করতে ও গবেষণায় উন্নতির জন্য বিভিন্ন দেশে কার্যালয় খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে পণ্যের মান উন্নয়নে গবেষণার জন্য দক্ষিণ কোরিয়ায় লিয়াজোঁ কার্যালয় খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কোম্পানিটি।

জানতে চাইলে ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম মোর্শেদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘ওয়ালটনকে বৈশ্বিক কোম্পানিতে রূপান্তরের চেষ্টার অংশ হিসেবে দুই বছর আগেই আমরা ওয়ালটন করপোরেশন ইউএসএ নামের একটি লিয়াজোঁ কার্যালয়ের অনুমোদন নিয়েছিলাম। কিন্তু করোনার কারণে সেটির কোনো কার্যক্রম শুরু করতে পারিনি। এখন এসে কার্যালয়টি চালুর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’

করপোরেট সংবাদ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন