অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দারাজের চিফ কমার্শিয়াল অফিসার সাব্বির হোসেন, চিফ অপারেটিং অফিসার খন্দকার তাসফিন আলম, চিফ করপোরেট অ্যাফেয়ার্স অফিসার এ এইচ এম হাসিনুল কুদ্দুস, চিফ কাস্টমার অফিসার ফারহানা রফিক উজ্জামান, চিফ ফাইন্যান্সিয়াল অফিসার মাহবুব হাসান, চিফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যান্ড সিকিউরিটি অফিসার কর্নেল (অব.) মোস্তফা জামান খানসহ অন্য শীর্ষ কর্মকর্তারা। এ ছাড়া অতিথি হিসেবে ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (আইবিএ) বিভাগের অধ্যাপক মিসেস সুতপা ভট্টাচার্য এবং নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আবদুল হান্নান চৌধুরী।

এই আয়োজনে ১৪ হাজারের বেশি আবেদন জমা পড়ে। প্রথম ধাপে কঠোর বাছাইপ্রক্রিয়া শেষে একটি অংশ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (আইবিএ) দ্বারা পরিচালিত লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে।

দ্বিতীয় ধাপে, দারাজ চ্যাম্পিয়নশিপ কেসস্টাডির জন্য বাছাইকৃত প্রার্থীদের কয়েকটি দলে বিভক্ত করা হয়। যেখানে তাঁদের সফট স্কিল এবং প্রযুক্তিগত ক্ষমতার ওপর ভিত্তি করে মূল্যায়ন করা হয়। সর্বশেষ তিনটি দল বিজয়ী হিসেবে উত্তীর্ণ হয়, যারা চূড়ান্ত সাক্ষাৎকারের ধাপে এগিয়ে যাবে।