করোনার কারণে বহু করদাতার আয় কমেছে। ফলে নির্ধারিত সময় শেষের দিকেও তারা রিটার্ন দিতে আগ্রহ দেখায়নি। তাদের জন্য এই সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) জনসংযোগ পরিচালক সৈয়দ এম এ মুমেন আজ মঙ্গলবার রাতে এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

বর্তমান আয়কর অধ্যাদেশ অনুযায়ী, প্রতিবছর ৩০ নভেম্বরের মধ্যে রিটার্ন জমা দেওয়া বাধ্যতামূলক। এবার করোনা পরিস্থিতির কারণে আজ এনবিআর তার নিজস্ব ক্ষমতাবলে এক মাস সময় বাড়িয়েছে।

জানা গেছে, করোনার কারণে বহু করদাতার আয় কমেছে। ফলে নির্ধারিত সময় শেষের দিকেও তারা রিটার্ন দিতে আগ্রহ দেখায়নি। তাদের জন্য এই সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

অবশ্য গত কয়েক দিন এনবিআরের একাধিক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা গণমাধ্যমে বলেছেন, কোনোভাবেই সময় বৃদ্ধি করা হবে না। অনেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও সময় বৃদ্ধি করা হবে না জানিয়ে স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তবে ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে রিটার্ন জমার সময় বৃদ্ধির দাবি করা হয়।

করোনার মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা থাকলেও কয়েক দিন ধরেই রাজধানীর বিভিন্ন কর কার্যালয়ে করদাতাদের প্রায় উপচে পড়া ভিড় দেখা যায়।

এনবিআর জানায়, বর্তমানে ৬৭ লাখ কর শনাক্তকরণ নম্বরধারী (টিআইএন) আছেন। প্রতিবছর গড়ে ২৫ লাখ করদাতা রিটার্ন জমা দেন।