বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এখন দাম কত পড়বে এবং কত দিনের মধ্যে এ টিকা আসবে—এসব বিষয়ে কোনো তথ্য দেননি অর্থমন্ত্রী। তিনি জানান, ‘চীন থেকে টিকা কেনা নিয়ে আগে একবার পেছনে পড়ে গিয়েছিলাম। তাই বিশদ বলা সম্ভব হচ্ছে না। টেকনিক্যাল সমস্যা আছে।’ তবে আইন মন্ত্রণালয়ের পরীক্ষা হয়ে গেছে এবং কত দিনের মধ্যে আসবে, তা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় ভালো জানে—এ কথাও উল্লেখ করেন অর্থমন্ত্রী।

ভারত থেকে পাঁচ মার্কিন ডলারে এবং চীন থেকে এর চেয়ে একটু বেশি দামে করোনার টিকা কেনার কথা জানা গিয়েছিল। কিন্তু সম্প্রতি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় একটি বিজ্ঞাপন দিয়ে বলেছে, প্রতি টিকার দাম পড়ছে প্রায় তিন হাজার টাকা। এ বিষয়ে জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, এটাও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় থেকে জানা যাবে।

ক্রয়–সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা শেষে অনলাইনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব শামসুল আরেফীন বলেন, চীনের সঙ্গে চুক্তি হয়েছিল দেড় কোটি টিকার। এর মধ্যে ২০ লাখ উপহার হিসেবে এসেছে। বাকি থাকছে ১ কোটি ৩০ লাখ। চীন পরে নতুন করে ২০ লাখ টিকা দিতে রাজি হয়েছে।

অর্থনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন