বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বর্ষাকালে প্রক্রিয়াকরণ জটিলতায় নারকেল তেলের কাঁচামালের দাম বেশি থাকে। এর ওপর করোনায় জাহাজভাড়া বেড়েছে, কিছু জায়গায় কনটেইনারও আটকে আছে। এর প্রভাব পড়েছে নারকেল তেলের দামে।
জেসমিন জামান, বিপণন বিভাগের প্রধান, স্কয়ার টয়লেট্রিজ।

প্যারাসুট ছাড়াও দেশীয় প্রতিষ্ঠান লালবাগ কেমিক্যালসের হাঁস মার্কা ও গন্ধরাজ তেল এবং স্কয়ার টয়লেট্রিজের জুঁই নারকেল তেলের দামও বেড়েছে একই হারে।
দাম বাড়ার বিষয়টি স্কয়ার টয়লেট্রিজ স্বীকার করেছে। প্রতিষ্ঠানটির বিপণন বিভাগের প্রধান জেসমিন জামান প্রথম আলোকে বলেন, বর্ষাকালে প্রক্রিয়াজাতকরণ জটিলতায় নারকেল তেলের কাঁচামালের দাম বেশি থাকে। এর ওপর করোনায় জাহাজভাড়া বেড়ে গেছে, কিছু জায়গায় কনটেইনারও আটকে আছে, এর প্রভাব পড়েছে নারকেল তেলের দামে।

তবে প্যারাসুট নারকেল তেলের উৎপাদক প্রতিষ্ঠান ম্যারিকো বাংলাদেশের করপোরেট অ্যাফেয়ার্সের পরিচালক ক্রিস্টাবেল র‍্যাডলফ দাবি করেন, গত তিন মাসে বাংলাদেশে তাঁদের উৎপাদিত কোনো তেলের দাম বাড়েনি। ম্যারিকো বাংলাদেশের এই পরিচালক অবশ্য বলেন, বিশ্ববাজারে কাঁচামালের দাম, কোভিডের প্রভাব, মুদ্রাস্ফীতি প্রভৃতি বিবেচনা করে পণ্যের দাম বাড়ানোর বিষয়টি পর্যালোচনা করা হয়েছে।

বাংলাদেশে নারকেল তেলের মাসিক চাহিদা প্রায় ১ হাজার ২০০ টন। নারকেল তেল দেশে উৎপাদন করা হলেও এর কাঁচামাল ‘কোপরা’ বা শুকনা নারকেলের একটি বড় অংশ আমদানি করা হয় ভারতের কেরালা, শ্রীলঙ্কা ও ইন্দোনেশিয়া থেকে।

ইন্ডিয়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (আইসিসিআই) তথ্য অনুযায়ী, গত রোববার ভারতের বাজারে প্রতি কেজি কোপরা বিক্রি হয়েছে ১১৩ দশমিক ৫ রুপিতে। গত ফেব্রুয়ারিতে এর কেজি সর্বোচ্চ ১৪০ টাকায় উঠেছিল, যা গত চার বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ।

এক কেজি কোরপা থেকে ৫০০ থেকে ৫৫০ মিলিগ্রাম নারকেল তেল পাওয়া যায়।

৩ জুন সংসদে উপস্থাপিত ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে নারকেল তেলের অপরিহার্য কাঁচামাল এলএলপি বা লাইট লিকুইড প্যারাফিনের সর্বনিম্ন দামের ওপর বাড়তি শুল্ক আরোপ করা হয়। এ ছাড়া দেশে উৎপাদিত ব্যক্তিগত যত্নের পণ্যের ওপর সম্পূরক শুল্কও ধার্য করা হয় বাজেটে, যা ইতিমধ্যেই কার্যকর হয়েছে। নারকেল তেলের দাম বৃদ্ধিতে এই সিদ্ধান্তের প্রভাব পড়বে বলে জানান ক্রিস্টাবেল র‍্যাডলফ। তিনি বলেন, সম্পূরক শুল্ক বিলাসজাত পণ্যের জন্য প্রযোজ্য। স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত নিত্যপ্রয়োজনীয় ভোগ্যপণ্যে তা আরোপ করা হলে বিদেশ থেকে আমদানি করা পণ্যের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকা মুশকিল হবে।

অর্থনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন