বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বৈঠকে সৌদি বাদশাহ ও যুবরাজের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শুভেচ্ছাবার্তা পৌঁছে দেন সালমান এফ রহমান। এ সময় তিনি বলেন, বাংলাদেশ চায় আগামী দিনে সৌদি আরব ও বাংলাদেশের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়বে। বাংলাদেশে উল্লেখযোগ্য খাতে বিনিয়োগ করতে সৌদি আরব এগিয়ে আসবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

ভার্চ্যুয়াল সভায় প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা বলেন, বাংলাদেশ থেকে বর্তমানে তৈরি পোশাক, চামড়াজাত পণ্য, প্লাস্টিক পণ্য, হিমায়িত মাছ ও ওষুধ আমদানি করে থাকে সৌদি আরব। বর্তমানে সৌদি আরব ও বাংলাদেশর মধ্যে ১৩০ কোটি ডলারের বাণিজ্য হয়ে থাকে। বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন পণ্য আমদানির মাধ্যমে দুই দেশের বাণিজ্য-অসমতা দূর করা যেতে পারে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

বৈঠকে সৌদি পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের (পিআইএফ) আওতায় বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে দেশটির বাণিজ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ জানান সালমান এফ রহমান। এ সময় সৌদি আরবের বাণিজ্যমন্ত্রী ইতিবাচক মত দেন। এ তহবিলের আওতায় ঢাকা থেকে পায়রা বন্দর পর্যন্ত রেললাইন নির্মাণ এবং কক্সবাজারকে আন্তর্জাতিক মানের পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে বিনিয়োগের আহ্বান জানান।

default-image

সৌদি আরবে বিদেশি অভিবাসীদের ব্যবসা-বাণিজ্য বৈধভাবে করার লক্ষ্যে সৌদি সরকারের ‘বাণিজ্যিক গোপনীয়তাবিরোধী আইন’ বিষয় উল্লেখ করে বাংলাদেশি যেসব অভিবাসী সৌদি আরবে ব্যবসা করছেন, তাঁদের সহায়তার জন্য সৌদি বাণিজ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ করেন সালমান এফ রহমান।

তথ্য বলছে, যেসব বাংলাদেশি সৌদি আরবে গিয়ে বছরের পর বছর ধরে অবৈধভাবে ব্যবসা করছেন, তাঁদের ব্যবসা বৈধ করার উদ্যোগ নিয়েছে দেশটির সরকার। কর্মী ভিসায় যাওয়া যেসব বাংলাদেশি নিজের নাম-পরিচয় গোপন করে কোনো সৌদি নাগরিকের নামে ব্যবসা করছেন, তাঁদের ব্যবসা নিবন্ধনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি সরকার। নিবন্ধনের জন্য আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে নিবন্ধন না করলে কঠোর শাস্তির মুখোমুখি হওয়ার ঘোষণা দিয়েছে দেশটি। সেই শাস্তি নিশ্চিত করতে এরই মধ্যে ‘বাণিজ্যিক গোপনীয়তাবিরোধী আইন’ সংশোধন করেছে দেশটির সরকার। অবশ্য এ সুযোগ শুধু বাংলাদেশিদের জন্যই নয়, সৌদি আরবে অবস্থিত সব বিদেশি নাগরিকের জন্য রাখা হয়েছে। বৈঠকে প্রবাসী বাংলাদেশি যাঁরা সেখানে ব্যবসা করছেন, তাঁদের সহায়তা করার অনুরোধ করেন সালমান এফ রহমান।

ভার্চ্যুয়াল সভায় বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ ইউসুফ হারুন, বাংলাদেশ সরকারি-বেসরকারি অংশীদারত্ব কর্তৃপক্ষের (পিপিপি) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সুলতানা আফরোজসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

অর্থনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন