সজীব ওয়াজেদ আরও বলেন, নেটওয়ার্ক সিস্টেম স্থাপিত হয়েছে, সরকারের সেবা ডিজিটালাইজড হয়েছে, প্রযুক্তি উন্নত হয়েছে, বাংলাদেশে বৃহৎ আইটি কোম্পানি গড়ে উঠেছে। এখন দেশেই ল্যাপটপ, মুঠোফোন ও কম্পিউটার মেমোরি চিপস উৎপাদিত হচ্ছে এবং সেগুলো রপ্তানি হবে।

সজীব ওয়াজেদ বলেন, ‘এখন আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে একটি ক্যাশলেস সমাজ প্রতিষ্ঠা। আমরা ইতিমধ্যেই এ ব্যাপারে কাজ শুরু করে দিয়েছি। কিন্তু এতে তিন থেকে চার বছর সময় লাগবে।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ ও আইসিটি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলম। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার।

বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালক মেজবাউল হক এই প্ল্যাটফর্মের বৈশিষ্ট্যগুলো বর্ণনা করে উপস্থাপনা দেন।

এদিকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘বিনিময়’ ডিজিটাল আর্থিক লেনদেনের ক্ষেত্রে যুগান্তকারী প্ল্যাটফর্ম, যা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তুলতে সরকারের সময়োচিত ও সুদূরপ্রসারী পদক্ষেপ।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সরকার সব ব্যাংক, এমএফএস অপারেটর ও পিএসপি হিসাব ইন্টারঅপারেবল করতে পদক্ষেপ নিয়েছে। ফলে ভোক্তা, ব্যবসায়ী, পিএসপি, ই-ওয়ালেট, ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, সরকারি সংস্থা ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে লেনদেন সহজ হবে। বিভিন্ন সেবার মধ্যে সমন্বয় আসবে।

‘বিনিময়’ সব ধরনের আর্থিক লেনদেনকে ব্যয়সাশ্রয়ী করবে। এতে লেনদেন সহজ হবে, নিশ্চিত হবে স্বচ্ছতা।

আরও জানানো হয়, আজ সোমবার থেকে এই প্ল্যাটফর্মে লেনদেন করা যাবে।