‘রূপকল্প: ২০৪১ অর্জনে পিপিপির ভূমিকা’ শীর্ষক গতকাল শনিবার বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশন (এফবিসিসিআই) আয়োজিত এক সেমিনারে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। রাজধানীর মতিঝিলে এফবিসিসিআইয়ের নিজস্ব কার্যালয়ে সেমিনারটি অনুষ্ঠিত হয়।

দেশের বর্তমান অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপটে সরকারি–বেসরকারি অংশীদারত্বে (পিপিপি) প্রকল্প বাস্তবায়নের পরামর্শ দিয়েছেন সালমান এফ রহমান। তিনি বলেন, পিপিপি ছাড়া অন্য কোনো উপায়ে প্রকল্প গ্রহণের সুযোগ নেই।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলম বলেন, বিভিন্ন উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য সরকারের একার পক্ষে পর্যাপ্ত বিনিয়োগ সম্ভব নয়। দেশে শক্তিশালী বেসরকারি খাত গড়ে উঠেছে। তাদেরও পিপিপির মাধ্যমেই উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে সংশ্লিষ্ট করতে হবে।

পিপিপির আওতায় উন্নয়নের ক্ষেত্রে আস্থাহীনতাকে সবচেয়ে বড় সমস্যা বলে মন্তব্য করেন সরকারের পিপিপি কর্তৃপক্ষের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মোহাম্মদ ইব্রাহীম। তিনি বলেন, বেসরকারি খাতকে অংশীদার হিসেবে দেখার মনোভাব তৈরি করতে হবে সরকারকে।

এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, সরকারি বিভিন্ন শিল্পকারখানায় হাজার হাজার একর অব্যবহৃত জমি আছে। এসব জমিতে শিল্প স্থাপন ও সরকারি কারখানার আধুনিকায়নে পিপিপি মডেল ব্যবহারের পরামর্শ দেন তিনি। তিনি আরও বলেন, দেশের অনেক বেসরকারি শিল্পপ্রতিষ্ঠানের আর্থিক সক্ষমতা তৈরি হয়েছে। তাদের সরকারের প্রকল্প অংশীদার করলে অর্থায়ন সহজ হবে। সরকারের চাপও কমবে।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ফরেন ইনভেস্টরস চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (ফিকি) সভাপতি নাসের এজাজ বিজয়। তিনি বলেন, অবকাঠামো ও সরবরাহ খাতে সরকারি বিনিয়োগ অপর্যাপ্ত। পিপিপির মাধ্যমে এ খাতে ২০ হাজার কোটি ডলার অর্থায়নের সুযোগ আছে বলে জানান তিনি।