এ ছাড়া ওই অনুষ্ঠানে নোরা ফাতেহীর সঙ্গী অন্যান্য কলাকুশলীর কাছ থেকে আয়কর আদায়ে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানের আয়োজক উইমেন লিডারশিপ করপোরেশনের সভাপতি ইশরাত জাহান মারিয়া প্রথম আলোকে বলেন, ইতিমধ্যে নোরা ফাতেহীর পারিশ্রমিক বাবদ সব কর দিয়েই তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নেওয়া হয়েছে। ২ নভেম্বর নোরা ফাতেহীর পারিশ্রমিকের ওপর কর দেওয়া হয়েছে।

এনবিআরের চিঠির ভাষ্য অনুযায়ী, বিদেশি অভিনেতা ও অভিনেত্রীদের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে বাংলাদেশে আসার অনুমতি বা ওয়ার্ক পারমিট নিতে হয়। গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ থেকে এনবিআর জানতে পেরেছে, উইমেন লিডারশিপ করপোরেশনের ব্যবস্থাপনায় ১৮ নভেম্বর ঢাকার একটি সম্মেলনকেন্দ্রে ‘গ্লোবাল এচিভারস অ্যাওয়ার্ড ২০২৩ উইমেন এমপাওয়ারমেন্ট ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক একটি তথ্যচিত্রের শুটিংয়ে অংশগ্রহণের জন্য নোরা ফাতেহীকে বাংলাদেশে আনার জন্য তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় থেকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

চিঠিতে আরও বলা হয়, বিদেশি শিল্পীদের বাংলাদেশের যেকোনো ধরনের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য চুক্তিপত্রে উল্লিখিত পারিশ্রমিক ছাড়াও অন্যান্য খরচ, যেমন বিমানভাড়া, অন্যান্য যাতায়াত খরচ, থাকা-খাওয়ার খরচসহ সব ধরনের খরচের পরিশোধিত অর্থের ওপর ৩০ শতাংশ হারে আয়কর আরোপিত হবে।

এর আগে গত ৩০ জুলাই রাজধানীর এক হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে আসেন ভারতের খ্যাতনামা অভিনেত্রী শিল্পা শেঠী। কিন্তু তিনি কোনো ধরনের আয়কর দেননি বলে এনবিআরের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সেল তদন্তে নামে। অনুষ্ঠানের আয়োজক মিডিয়া অ্যান্ড প্রোডাকশন লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী শাজাহান ভূঁইয়াকে জিজ্ঞাসাবাদ করে কর গোয়েন্দারা। তদন্ত এখনো চলমান বলে এনবিআর সূত্রে জানা গেছে।