default-image

মুনাফা করার পরও বিনিয়োগকারীদের লভ্যাংশ না দেওয়ায় পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বেসরকারি মোবাইল অপারেটর রবি আজিয়াটার ওপর চরম অসন্তোষ প্রকাশ করেছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। আজ মঙ্গলবার কোম্পানিটির শীর্ষ কর্মকর্তাদের ডেকে পাঠায় বিএসইসি। পরে দুপুর সাড়ে ১২টায় রবি আজিয়াটার হেড অব করপোরেট অ্যাফেয়ার্স শাহেদ আলমের নেতৃত্বে একটি দল বিএসইসিতে যায়। এ সময় বিএসইসির চেয়ারম্যান শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের নেতৃত্বে আরও দুই কমিশনারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে মুনাফা হওয়ার পরও কেন বিনিয়োগকারীদের লভ্যাংশ দেওয়া হলো না, সে বিষয়ে রবির কাছে ব্যাখ্যা জানতে চাই বিএসইসি। এ বিষয়ে চরম অসন্তোষ প্রকাশ করে বিএসইসি জানায়, বিনিয়োগকারীরা কিছু না পেয়ে হতাশ। এই বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা পূরণ না হওয়ার প্রতিকার কী হতে পারে, তাও জানতে চেয়েছে বিএসইসি।

বৈঠক সূত্রে রবির পক্ষ থেকে জানানো হয়, তারা এর প্রতিকার কী হতে পারে এবং বিএসইসি যে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে, এ বিষয় তাদের পরিচালনা পর্ষদকে অবহিত করা হবে। পর্ষদের সঙ্গে কথা বলে কী প্রতিকার হতে পারে, পরে তা বিএসইসিকে জানানো হবে।

বিজ্ঞাপন

জানতে চাইলে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম প্রথম আলোকে বলেন, ‘রবি বিনিয়োগকারীদের কোনো লভ্যাংশ না দেওয়ায় আমরা প্রতিষ্ঠানটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আজ ডেকেছিলাম। সেখানে বিএসইসির অসন্তোষ তাদের জানানো হয়েছে। এবং “নো ডিভিডেন্ডের” প্রতিকার কী হতে পারে, তাও আমরা প্রতিষ্ঠানটির কাছ থেকে জানতে চেয়েছি।’

পরে আজ বিকেল ৩টায় আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ উপলক্ষ্য আয়োজিত এক অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে লভ্যাংশের বিষয়ে রবি আজিয়াটার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, বিএসইসি মোটেও খুশি না। তারা অসন্তোষ প্রকাশ করেছে। তাদের সেন্টিমেন্ট ও ইমোশনের সঙ্গে আমরা একমত। তাদের এই অসন্তোষের বিষয়টি পরিচালনা পর্ষদকে অবহিত করা হবে।

মাহতাব উদ্দিন আহমেদ আরও বলেন, রবি যে মুনাফা করেছে, তা দিয়ে কর প্রদানের পর যে লভ্যাংশ দিতে পারতাম তা দিয়ে বিনিয়োগকারীদের খুশি করা যেত কিনা তা বিবেচ্য বিষয়। তাই লভ্যাংশ দেওয়ার বদলে ব্যবসায় বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বোর্ড।

৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত ২০২০ হিসাব বছরের জন্য বিনিয়োগকারীদের কোনো লভ্যাংশ দেয়নি রবি। রবির তথ্য অনুযায়ী, ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত ২০২০ সমাপ্ত হিসাববছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩৩ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৩ টাকা ৯০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস হয়েছিল ৪ পয়সা এবং এনএভিপিএস ছিল ১২ টাকা ৬৪ পয়সা।

রবি আজিয়াটার বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ২১ মার্চ ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে অনুষ্ঠিত হবে। এ-সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট আগামী ৮ মার্চ নির্ধারণ করা হয়েছে।

এদিকে আজ ডিএসইতে কমে কোম্পানিটির শেয়ারের দর। লেনদেন শেষে আগের দিনের তুলনায় দাম কমেছে ৪ টাকা ২০ পয়সা। গত ২৪ ডিসেম্বর দেশের ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন শুরু হয় রবির।

বিজ্ঞাপন
শেয়ারবাজার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন