default-image

শেয়ারবাজারে বিদেশি ও বাংলাদেশি প্রবাসীদের বিনিয়োগ বাড়াতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রোড শো করবে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। তারই অংশ হিসেবে আগামী মঙ্গলবার থেকে দুবাইয়ে চার দিনব্যাপী রোড শোর আয়োজন করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বিএসইসি কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ রোড শোর বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ের বিখ্যাত দুবাই মলের কাছে স্কাইভিউ হোটেলে এ রোড শো অনুষ্ঠিত হবে। মঙ্গলবার শুরু হওয়া এ রোড শো চলবে শুক্রবার পর্যন্ত। চার দিনের এ আয়োজনে মোট পাঁচটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। রোড শোতে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির চেয়ারম্যান শিবলী রুবাইয়াত উল ইসলামের নেতৃত্বে সংস্থাটির কমিশনার, নির্বাহী পরিচালক, দুই স্টক এক্সচেঞ্জসহ পুঁজিবাজার-সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা অংশ নেবেন। বিএসইসির গতকালের সংবাদ সম্মেলনে সংস্থাটির চেয়ারম্যান ছাড়াও বক্তব্য দেন নির্বাহী পরিচালক মাহবুবুর রহমান ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম।

বিএসইসির চেয়ারম্যান তাঁর বক্তব্যে বলেন, শেয়ারবাজারে বহুজাতিক কোম্পানি তালিকাভুক্ত হলে বাজার শক্তিশালী হয়। সাধারণত বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর খুব বেশি অর্থের প্রয়োজন হয় না। তাই টাকার জন্য এসব কোম্পানি শেয়ারবাজারে আসবে না। এমনিতে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হলে বিভিন্ন আইনকানুন পরিপালন করতে গিয়ে ২ থেকে ৩ শতাংশ খরচ বেড়ে যায়। এ অবস্থায় বহুজাতিক কোম্পানিগুলোকে বাজারে আনতে হলে তাদের বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধা দিতে হবে। বর্তমানে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ও তালিকাভুক্ত নয়—এমন কোম্পানির ক্ষেত্রে কর হারের ব্যবধান সাড়ে ৭ শতাংশ। এ ব্যবধান বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করা হলে এসব কোম্পানি শেয়ারবাজারে আসতে আগ্রহী হবে।

বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এ আয়োজনে প্রবাসী বাংলাদেশিদের পাশাপাশি বিদেশি বিনিয়োগকারীদের নিয়েও আলাদা সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া এ সময়ে অনলাইনে বিও (বেনিফিশিয়ারি ওনার্স) হিসাব খোলার নতুন ব্যবস্থাটিও চালু করা হবে। ঢাকার একজন ও দুবাই প্রবাসী একজন বাংলাদেশি বিনিয়োগকারীর বিও হিসাব খোলার মাধ্যমে এ সুবিধার আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করা হবে। এরই মধ্যে এ-সংক্রান্ত সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। এখন থেকে ঘরে বসে অনলাইনে মাত্র ৪৫০ টাকায় বিও হিসাব খোলার সুযোগ পাবেন বিনিয়োগকারীরা। দেশে বসবাসকারী বিনিয়োগকারীদের পাশাপাশি প্রবাসী বাংলাদেশিরা এ সুবিধা পাবেন।

বিএসইসির পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়, বিদেশি বিনিয়োগকারীদের পাশাপাশি প্রবাসী বাংলাদেশি বিনিয়োগকারীদের দেশের পুঁজিবাজারে বিনিয়োগে আগ্রহী করে তুলতে এ আয়োজনে থাকবে কিছু বিশেষ প্রদর্শনীও। যুক্তরাজ্যের লন্ডন, ইতালির রোম, যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক, সিঙ্গাপুর, হংকং, জাপানের টোকিও, মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন উন্নত শহরেও এ ধরনের আয়োজনের পরিকল্পনা রয়েছে। আপাতত করোনার কারণে এসব দেশে এ ধরনের আয়োজন সম্ভব হচ্ছে না। দুবাইয়ের পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ায় প্রথম এ শহরকে বেছে নেওয়া হয়েছে।

শেয়ারবাজার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন