অনুষ্ঠানে শেয়ারবাজারের ১৩টি কোম্পানিতে পড়ে থাকা ৪২ জন বিনিয়োগকারীর অদাবিকৃত ৭০ লাখ ৫১ হাজার ৭০৩ টাকা আজ ফেরত দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, সিএমএসএফ গঠনের পর থেকে এখন পর্যন্ত ২৫০ জন বিনিয়োগকারী তাঁদের অর্থ ফেরত চেয়ে আবেদন করেছেন। এর মধ্যে গতকাল পর্যন্ত ১৮৮ জনের ১ কোটি ৮ লাখ টাকা ফেরত দেওয়া হয়েছে।

এদিকে দীর্ঘদিন ধরে অদাবিকৃত অবস্থায় পড়ে থাকা বিনিয়োগকারীদের অর্থ ফেরত দেওয়ার পাশাপাশি সিএমএসএফের পক্ষ থেকে নতুন একটি মিউচুয়াল ফান্ডেরও লেনদেন শুরুর ঘোষণা দেওয়া হয়। ‘আইসিবি এএমসিএল সিএমএসএফ গোল্ডেন জুবিলি মিউচুয়াল ফান্ড’ নামে গঠিত নতুন এই ফান্ডের লেনদেন শুরু হবে আগামীকাল বুধবার থেকে। আইসিবি এএমসিএল ও সিএমএসএফ মিলে এ মিউচুয়াল ফান্ডটি বাজারে এনেছে।

default-image

অর্থ ফেরত ও নতুন ফান্ডের লেনদেন শুরু উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, শেয়ারবাজারে মিউচুয়াল ফান্ডগুলো এখন ভালো করছে। কাল থেকে যে ফান্ডটি চালু হচ্ছে, সেটিও বেশ ভালো করবে। ভবিষ্যতে ব্যাংকের স্থায়ী আমানত বা এফডিআরের বিকল্প হয়ে উঠবে এসব মিউচুয়াল ফান্ড।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএসইসি কমিশনার শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আমাদের শেয়ারবাজারে শহীদজননী জাহানারা ইমামের বিনিয়োগ ছিল, এত দিন এটা আমার জানা ছিল না। উনার বিনিয়োগের অর্থ ফেরত দিতে পারা নিঃসন্দেহে ভালো উদ্যোগ।’

অনুষ্ঠানে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) চেয়ারম্যান মো. ইউনুসুর রহমান বলেন, ‘আমাদের শেয়ারবাজারে মিউচুয়াল ফান্ডের উপস্থিতি খুবই কম। অথচ পাশের দেশ ভারতেও অনেক বেশি মিউচুয়াল ফান্ড বাজারে রয়েছে।’

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে সিএমএসএফের চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান বলেন, আজকের এই দিনটি দুটি বিশেষ কারণে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। প্রথমত, বঙ্গবন্ধুর নামে মিউচুয়াল ফান্ডের যাত্রা শুরু হয়েছে। অন্যদিকে শহীদজননীর পরিবারের অমীমাংসিত অর্থ ফেরত দেওয়া হয়েছে।

শেয়ারবাজার থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন