এজাহারে বলা হয়, ফেনীর দাগনভূঞা এলাকার স্থায়ী মো. আবু রমিম সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফেসবুকে ‘বিডি স্টকস ডিসকাশন’ নামের একটি পেজ খুলে পুঁজিবাজারের স্থিতিশীলতা নষ্ট ও বিনিয়োগকারীদের প্রতারিত করতে নানা ধরনের তথ্য পরিবেশনের মাধ্যমে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন। অভিযোগে আরও বলা হয়, অভিযুক্ত ব্যক্তি বেআইনিভাবে লাভবান হওয়ার উদ্দেশ্যে বিনিয়োগকারীদের প্ররোচনা ও প্রলুব্ধ করে আসছেন। এ ধরনের কার্যকলাপ পুঁজিবাজারের বিনিয়োগকারী এবং রাষ্ট্রের স্বার্থবিরোধী। তাই অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ করেছেন অভিযোগকারী।

অভিযোগে আরও বলা হয়, অভিযুক্ত ব্যক্তি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে পুঁজিবাজার নিয়ে যেসব কার্যকলাপ পরিচালনা করছেন, তা শুধু ফৌজদারি অপরাধ নয়, বিনিয়োগকারীদের আস্থা ও পুঁজিবাজারের স্থিতিশীলতা নষ্টের উপাদানও রয়েছে তাতে।

অভিযোগকারী এজাহারে উল্লেখ করেছেন, অভিযুক্ত ব্যক্তি আবু রমিম ২০ নভেম্বর উল্লিখিত ফেসবুক পেজে লেখেন, ‘বেক্সিমকো/ওরিয়ন গ্রুপ না টিকলে এ বাজার ধরে রাখা যাবে না। আশা করা যায়, আগামীকাল চেকসংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনের স্থগিতাদেশ আসবে, যতক্ষণ না আসবে ততক্ষণ মাইর চলবে।’ এজাহারে অভিযুক্ত ব্যক্তির বর্তমান ঠিকানা উল্লেখ করা হয়েছে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানাধীন চকবাজার এলাকার বেভারলী হিল।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম প্রথম আলোকে বলেন, ‘বিএসইসির পক্ষ থেকে মামলার এজাহার করা হয়েছে। এখন সংশ্লিষ্ট থানা বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’