জানা গেছে, গত সপ্তাহে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর মধ্যে অনেকগুলো কোম্পানি লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ কারণে কোম্পানিগুলোর শেয়ারের বাজারমূল্য সমন্বয় করতে গিয়ে জটিলতা দেখা দেয়। যার কারণে সংস্থাটি নির্ধারিত সময়ে লেনদেন শুরু করতে পারেনি।

এদিকে, শুক্র ও শনিবার দুই দিন লেনদেন বন্ধ থাকার পরও সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে এমন সমস্যা দেখা দেওয়ায় বিনিয়োগকারী ও ডিএসইর সদস্যভুক্ত ব্রোকারেজ হাউসের কর্মকর্তাদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

এর আগে গত সোমবারও কারিগরি ত্রুটির কারণে ডিএসইতে লেনদেন বিঘ্ন ঘটে। ওইদিন লেনদেন শুরুর এক ঘণ্টা ২৮ মিনিট পর সকাল ১০টা ৫৮ মিনিটে লেনদেন বন্ধ হয়ে যায়। পরে ত্রুটি সারিয়ে মাত্র ২০ মিনিটের লেনদেন হয়েছিল।

আজ সময়মতো লেনদেন শুরু না হওয়ার বিষয়ে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ রেজাউল করিম প্রথম আলোকে বলেন, এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ জানানো হয়নি। তবে ডিএসইর কারিগরি ত্রুটির সামগ্রিক বিষয়টি খতিয়ে দেখতে গত সপ্তাহে একটি কমিটি করা হয়েছে। সেই কমিটি সব কটি বিষয় খতিয়ে দেখবে।