গতকাল শনিবার রাজধানীর গুলশানের একটি কমিউনিটি সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে আর্থিক প্রতিষ্ঠানটির আমানতকারীরা এসব কথা বলেন। একই সঙ্গে দ্রুত টাকা ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা করতে বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতি আহ্বান জানান তাঁরা।

আমানতকারীরা বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক পিপলস লিজিংকে সঠিকভাবে নজরদারি ও তদারক না করায় প্রশান্ত কুমার হালদারসহ লুটপাটকারীরা তাঁদের অর্থ আত্মসাৎ করেছেন। তাই এ ঘটনার জন্য মূল দায়ী বাংলাদেশ ব্যাংক।

সংবাদ সম্মেলনে আদালতের পক্ষ থেকে নিযুক্ত পিপলস লিজিংয়ের বর্তমান চেয়ারম্যান হাসান শাহেদ ফেরদৌস বলেন, পিপলস লিজিং যে ঋণ দিয়েছিল, তা থেকে ইতিমধ্যে ৯০ কোটি টাকা আদায় হয়েছে। আগামী বছরের মধ্যে প্রায় ৩০০ কোটি টাকা আদায় হতে পারে। এর মাধ্যমে অন্তত এক হাজার গ্রাহকের টাকা ফেরত দেওয়া সম্ভব হবে। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন পিপলস লিজিংয়ের আমানতকারীদের কাউন্সিলের প্রধান সমন্বয়কারী মো. আতিকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক রানা ঘোষ, সমন্বয়ক সামিয়া বিনতে মাহবুব প্রমুখ।