বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংস্থাটি বলছে, বিদ্যুৎ–সংকটের কারণে শিল্প উৎপাদন কমে যাওয়ায় ‘উল্লেখযোগ্য নেতিবাচক চাপ’ পড়বে। সংস্থাটি মনে করছে, বিদ্যুৎ–সংকট চীনের শিল্প কার্যক্রমের ৪৪ শতাংশের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে।

পরিবেশগত নিয়ন্ত্রণ, সরবরাহের সীমাবদ্ধতা ও মূল্যবৃদ্ধির কারণে প্রথমে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যাহত হতে শুরু করে। এখন বেশ কিছু কারখানা ও এলাকা বিদ্যুৎবিহীন হয়ে রয়েছে।

শুরুতে কলকারখানা বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়েছিল, পরে আবাসিক এলাকাও বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। অনেক প্রতিষ্ঠান সাম্প্রতিক সপ্তাহে উৎপাদন সীমিত করতে বা বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছে। সেই সঙ্গে চীনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বাসিন্দারা হঠাৎ করেই বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়েছে। এমনকি উত্তরে তিয়ানজিনে চীনের বৃহত্তম বন্দরটি বিদ্যুতের ঘাটতিতে পড়েছে। এই অবস্থা চলতে থাকলে তা প্রবৃদ্ধির ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

বিদ্যুৎ–সংকট ছাড়াও চীনের দ্বিতীয় বৃহৎ আবাসন কোম্পানির ঋণ সংকট বিনিয়োগকারীদের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে, যার প্রভাব দেখা যাবে প্রবৃদ্ধিতে।

বিশ্ববাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন