বিজ্ঞাপন

তবে পরে বেজোসই শীর্ষে থাকেন। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে আরনল্ট আর তৃতীয় অবস্থানে আছেন ইলন মাস্ক।

ফোর্বসের তথ্য অনুযায়ী, ২০২০ সালের মার্চে আরনল্টের সম্পদের পরিমাণ ছিল ৭ হাজার ৬০০ কোটি ডলার, যা গতকাল পর্যন্ত বেড়ে হয় ১৮ হাজার ৬৩০ কোটি ডলার। অর্থাৎ ১৪ মাসে ১১ হাজার কোটি ডলার সম্পদ বেড়েছে তাঁর।

এলভিএমএইচের সঙ্গে ফেন্ডি, ক্রিশ্চিয়ান ডায়ার এবং গিভেঞ্চির মতো অন্যান্য বড় বড় ফ্যাশন ব্র্যান্ডও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। গতকাল এ কোম্পানিগুলোর শেয়ারের দরও বেড়েছে।

গত মাসে প্রথম প্রান্তিকের বিক্রয় প্রবৃদ্ধির কথা জানায় এলভিএমএইচ, যা বিশ্লেষকদের প্রত্যাশার চেয়েও অনেক বেশি ছিল। চীনসহ এশিয়ার দেশগুলোতে তার পণ্যের চাহিদা ছিল ব্যাপক। শুধু ক্রিশ্চিয়ান ডায়ারের শেয়ারের দর এই বছর ২০ শতাংশেরও বেশি বেড়েছে, যা আরনল্টকে বিশ্বের দ্বিতীয় ধনী ব্যক্তি হিসেবে ইলন মাস্ককে ছাড়িয়ে যেতে সহায়তা করেছে।

বিশ্বের ধনী ব্যক্তিদের দৈনিক উত্থান-পতন ট্র্যাক করে ফোর্বসের রিয়েল-টাইম বিলিয়নিয়ারস তালিকা করা হয়।

বিশ্ববাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন