আলোচ্য জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে টেসলার ১৬০ কোটি ডলারের নিট মুনাফা অর্জনের রেকর্ড করেছে। এই তিন মাসে কোম্পানিটির মোট বৈদ্যুতিক গাড়ি বিক্রি হয়েছে ২ লাখ ৪১ হাজার ৩৯১টি। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয়েছে মডেল থ্রি ও মডেল ওয়াই, যা সংখ্যায় ২ লাখ ৩২ হাজার ১০২। এ সম্পর্কে কোম্পানিটি এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘এবার আমরা এযাবৎকালের সবচেয়ে বেশি পরিমাণ নিট মুনাফা, পরিচালন মুনাফা ও মোট মুনাফা অর্জন করেছি।’

টেসলা বলেছে, তাদের তৈরি বৈদ্যুতিক গাড়ি এখনো সবচেয়ে বেশি রপ্তানি হয় বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ চীনে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক খবরে বলা হয়েছে, তারা এখন বিশ্ববাজারে তাদের গাড়ির জন্য বিভিন্ন ধরনের নতুন ব্যাটারি বাজারজাতকরণের পরিকল্পনা করছে। এর মধ্যে রয়েছে গতানুগতিক বা সনাতনী ব্যাটারির পরিবর্তে নানা রকমের লিথিয়াম আয়রন ফসফেট ব্যাটারি বিপণন। এ ধরনের ব্যাটারির দাম সনাতনী ব্যাটারির তুলনায় অনেক কম। এতে গাড়ির দাম এবং যন্ত্রাংশের ঘাটতি কমবে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।

বিভিন্ন ধরনের চ্যালেঞ্জের মধ্যে থাকার কথা জানিয়ে টেসলা জানিয়েছে, তারা কারখানাগুলো চালু রাখবে, অর্থাৎ গাড়ি উৎপাদন অব্যাহত থাকবে। বিশ্বব্যাপী বর্তমানে গাড়ির মাইক্রোচিপের ঘাটতি রয়েছে এবং বন্দরগুলোতেই জট লেগে আছে বলে জানায় কোম্পানিটি।

বিশ্ববাজারে এখন কম্পিউটারের চিপ বা সেমিকন্ডাক্টর সরবরাহে ঘাটতি রয়েছে। এই চিপ গাড়ি, ওয়াশিং মেশিন, স্মার্টফোনসহ অসংখ্য পণ্য তৈরিতে ব্যবহার করতে হয়। যা-ই হোক, টেসলা প্রতিকূলতার মধ্যেও তাদের উৎপাদন কর্মকাণ্ড চালিয়ে যেতে চায়, যাতে বার্ষিক গাড়ি বিক্রি ৫০ শতাংশ বাড়ানো যায়।

টেসলা গাড়ি কোম্পানির মালিক ইলন মাস্ক বর্তমানে বিশ্বের দ্বিতীয় শীর্ষ ধনী। যুক্তরাষ্ট্রের খ্যাতনামা ম্যাগাজিন ফোর্বসের তথ্য অনুযায়ী গতকাল বৃহস্পতিবার তার সম্পদের নিট মূল্য ২১ হাজার ৯৯০ কোটি ডলার। সূত্র: বিবিসি ও ফোর্বস