এইচঅ্যান্ডএমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হেলেনা হেলমারসন জানান, তাঁরা এত দিন সতর্কতার সঙ্গে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করেছেন। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে রাশিয়ায় ব্যবসা চালিয়ে যাওয়ার কোনো সম্ভাবনা দেখতে পাননি।

রাশিয়ার গ্রাহক ও কর্মীদের উদ্দেশ করে হেলেনা হেলমারসন বলেন, ‘রাশিয়ায় ব্যবসা বন্ধের ফলে আমাদের সহকর্মীদের ওপর যে প্রভাব পড়বে, তার জন্য আমরা গভীরভাবে দুঃখিত। তাদের কঠোর পরিশ্রম ও ত্যাগের জন্য আমরা কৃতজ্ঞ। এ ছাড়া বছরের পর বছর ধরে যেসব গ্রাহক আমাদের সমর্থন দিয়ে গেছেন তাঁদেরও ধন্যবাদ জানাতে চাই।’ তবে শেয়ার বিক্রির উদ্যোগ নিলেও কবে নাগাদ পুরোপুরিভাবে রাশিয়া ছাড়বে তা জানাননি তিনি।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে যুদ্ধ শুরু করে রাশিয়া। এর পরের কয়েক মাসে রাশিয়ায় ব্যবসা বন্ধ বা স্থগিত করে বিশ্বের নামীদামি অনেক ব্র্যান্ড ও কোম্পানি। এসব বিশ্বখ্যাত কোম্পানির মধ্যে রয়েছে— খাবারের ব্র্যান্ড ম্যাকডোনাল্ডস, স্টারবাকস ও কোকা–কোলা; পোশাকের ব্র্যান্ড মার্কস অ্যান্ড স্পেনসার ও জারা, ক্রীড়াসামগ্রীর ব্র্যান্ড নাইকি, প্রযুক্তি খাতের কোম্পানি অ্যাপল, স্যামসাং। সব মিলিয়ে শতাধিক বৈশ্বিক ব্র্যান্ড রাশিয়া ছেড়ে গেছে কিংবা দেশটিতে ব্যবসা বন্ধ করেছে।

এসব কোম্পানির অনেকগুলোই জানিয়েছে, বিভিন্ন পশ্চিমা দেশের আরোপিত নিষেধাজ্ঞার কারণে রাশিয়ায় বাণিজ্যের পরিবেশ নষ্ট হয়ে গেছে। কোনো কোনো খাতে তো ব্যবসা করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। আর অন্যরা যুদ্ধের বিষয়ে নিজেদের নৈতিক অবস্থান কথা তুলে ধরে রাশিয়া ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

বিবিসি জানায়, গত মার্চ মাসে রাশিয়ায় কার্যক্রম স্থগিত করার আগে রাশিয়া ছিল এইচঅ্যান্ডএমের ষষ্ঠ বৃহত্তম বাজার। ২০২১ সালের শেষ তিন মাসে এইচঅ্যান্ডএম গ্রুপের মোট বিক্রির প্রায় ৪ শতাংশ হয়েছিল রাশিয়ায়।

২০০৯ সালে রাশিয়ায় কার্যক্রম শুরু করে এই বৃহৎ ফ্যাশন ব্র্যান্ডটি। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই রাশিয়ায় কার্যক্রম বাড়তে থাকে এটির। কার্যক্রম স্থগিতের আগে রাশিয়ায় এইচঅ্যান্ডএমের ১৫০টিরও বেশি বিক্রয়কেন্দ্র ও প্রায় ছয় হাজার কর্মী ছিল। এইচঅ্যান্ডএম জানায়, রাশিয়া ছাড়ার কারণে তাদের প্রায় ১৬ কোটি পাউন্ড ব্যয় হবে।

বিশ্ববাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন