সম্মেলনে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর প্রায় ৩০ জন প্রতিনিধি অংশ নেন। আইসিএবির পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন বিশ্বের অনেক দেশের কাছে উদাহরণ। উন্নয়নের এই প্রবৃদ্ধি ধরে রাখার জন্য এই অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে বাণিজ্য বাড়াতে হবে। সে ক্ষেত্রে আঞ্চলিক সংযোগ অপরিহার্য। চ্যালেঞ্জ থাকবে, তবে একসঙ্গে কাজ করলে এগিয়ে যাওয়া সম্ভব।

আইসিএবির সভাপতি মো. শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘প্রবৃদ্ধি নিশ্চিত করতে আমাদের টেকসই উন্নয়নবিষয়ক প্রতিবেদন ও পরিবেশবান্ধব অর্থায়নের দিকে নজর দিতে হবে।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আঞ্চলিক সংযোগ ও টেকসই প্রবৃদ্ধির ওপর প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর আতিউর রহমান। তিনি বলেন, ‘দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে আঞ্চলিক বাণিজ্য গত এক দশকে ক্রমাগত বাড়ছে। তবে প্রকৃত সম্ভাবনার তুলনায় এই প্রবৃদ্ধির গতি অনেক কম।’

সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ, আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান পারভীন মাহমুদ, সাফা সভাপতি এইচ এম হেনায়াকে বান্দারা, আইসিএবির সাবেক সভাপতি মো. হুমায়ুন কবির প্রমুখ।