মৌখিক পরীক্ষার সময় নিম্নবর্ণিত কাগজপত্রের মূল কপি প্রদর্শন করতে হবে এবং প্রথম শ্রেণির গেজেটেড কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত অনুলিপি জমা দিতে হবে।

  • ১. শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পর্কিত সব মূল বা সাময়িক সনদ, অভিজ্ঞতা (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) সনদের সত্যায়িত কপি।

  • ২. জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্মনিবন্ধন সনদের সত্যায়িত কপি।

  • ৩. সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান/পৌরসভার মেয়র/সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর কর্তৃক প্রদত্ত নাগরিকত্ব সনদ।

  • ৪. প্রথম শ্রেণির গেজেটেড কর্মকর্তা কর্তৃক চারিত্রিক সনদ।

  • ৫. শারীরিক প্রতিবন্ধী, এতিম, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী, আনসার ও ভিডিপি প্রার্থীদের ক্ষেত্রে সরকারের সর্বশেষ নীতিমালা অনুযায়ী উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের সার্টিফিকেট এবং মুক্তিযোদ্ধা কোটায় আবেদনকারী প্রার্থীদের ক্ষেত্রে সরকারের সর্বশেষ নীতিমালা অনুযায়ী মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রদত্ত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানের পিতা-মাতার/নাতি-নাতনির পিতার পিতা-মাতা/মাতার পিতা-মাতার মুক্তিযোদ্ধা সনদের সত্যায়িত কপি।

  • ৬. প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধার নাতি–নাতনি হলে প্রার্থীর সঙ্গে বীর মুক্তিযোদ্ধার সম্পর্ক উল্লেখপূর্বক প্রথম শ্রেণির গেজেটেড কর্মকর্তা অথবা সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান/পৌরসভার মেয়র/সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর কর্তৃক প্রদত্ত প্রত্যয়নপত্রের সত্যায়িত অনুলিপি।

গত ৩১ অক্টোবর ইউনিয়ন সমাজকর্মী পদের লিখিত পরীক্ষার (এমসিকিউ) ফলাফল প্রকাশিত হয়। এতে উত্তীর্ণ হয়েছেন ৫ হাজার ১৭৮ জন।

সমাজসেবা অধিদপ্তরের তৃতীয় শ্রেণির সমাজকর্মী (ইউনিয়ন) স্থায়ী রাজস্ব শূন্য পদের সংখ্যা ৪৬৩টি। আবেদন করেছিলেন ৬ লাখ ৬২ হাজার ২৭০ জন।

২১ অক্টোবর সারা দেশে ৬৪ জেলায় ইউনিয়ন সমাজকর্মী পদের লিখিত পরীক্ষা একযোগে অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষায় ৬ লাখ ৬২ হাজার ২৭০ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২ লাখ ৩৬ হাজার ৬৪১ জন অংশগ্রহণ করেন। অনুপস্থিত ছিলেন ৪ লাখ ২৫ হাজার ৬২৯ জন।

২০১৮ সালে ইউনিয়ন সমাজকর্মী পদে নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছিল। সেই হিসেবে আবেদনের চার বছর পর লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হয়।