আজ আন্দোলনকারীরা অভিযোগ করেন, আন্দোলন চলাকালে তাঁদের কয়েকজনকে পুলিশ লাঠিপেটা করে। পরে প্রতিবাদের মুখে পুলিশ পিছু হটে। আজও আগের নিয়মে নন-ক্যাডার নিয়োগ দেওয়ার স্লোগান দিতে দেখা গেছে চাকরিপ্রার্থীদের। তাঁদের একজন অভিযোগ করে বলেন, ‘আমরা ভেবেছিলাম পিএসসির চেয়ারম্যান অন্তত একবার বাইরে এসে আমাদের কথা শুনবেন। আমাদের বলবেন, “তোমরা ঘরে ফিরে যাও, তোমাদের সর্বোচ্চসংখ্যক যেন চাকরি হয়, সেই ব্যবস্থা করব।” কিন্তু আজ অবস্থান কর্মসূচির তিন দিন হলেও পিএসসির চেয়ারম্যান তো দূরে থাক, কেউ আসেননি, খোঁজও নেননি।’

গতকাল রোববার লাগাতার কর্মসূচির প্রথম দিনে আন্দোলন করেছেন তাঁরা। আন্দোলনকারীরা জানান, গতকাল সারা দিন আন্দোলনের পর সন্ধ্যায় তাঁরা মোমবাতি প্রজ্বালনের মাধ্যমে আন্দোলন করেন। একপর্যায়ে পুলিশ এসে তাঁদের পিএসসির গেট থেকে সরে যেতে বলে। পরে তাঁরা গেট থেকে সরে গিয়ে রাতে অবস্থান করতে চাইলে পুলিশ তাঁদের চলে যেতে বলে। গতকালের আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় তাঁরা আজও পিএসসির সামনে আন্দোলন শুরু করেছেন।

নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এখন থেকে নতুন বিসিএসের বিজ্ঞপ্তিতে ক্যাডার পদের পাশাপাশি নন-ক্যাডার পদের সংখ্যাও উল্লেখ থাকবে। তবে চলমান ৪০, ৪১, ৪৩ ও ৪৪তম বিসিএসের ক্ষেত্রে কোন বিসিএসের সময় কোন শূন্য পদের চাহিদা এসেছে, তা পর্যালোচনা করে মেধার ভিত্তিতে নন-ক্যাডার পদে নিয়োগের সুপারিশ করা হবে।