বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

গত সোমবার টিএসি বিবৃতি দিয়েই তাদের অফিসের কর্মদিবস ও ছুটির কথা জানিয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তির এ কোম্পানির দাবি, যদি এ নিয়মে কর্মীদের কর্মদক্ষতা ও সৃজনশীলতা আরও বৃদ্ধি পায় এবং কর্মীরা খুশি থাকেন, তাহলে মুম্বাই অফিসে স্থায়ীভাবে চার দিন কাজের নিয়ম কার্যকর করা হবে।

কোম্পানিতে কাজ করেন প্রায় ২০০ জন কর্মী। ভবিষ্যতে চার দিন ছুটি কর্মক্ষেত্রে কার্যকর করতে চায় টিএসি। চার দিন ছুটির বিষয় মাথায় রেখেই এগিয়ে চলে কোম্পানির কর্মপরিকল্পনা। তাদের ভাষ্য, এতে কর্মীরা অফিস ও ব্যক্তিগত জীবনের মধ্যে ভারসাম্য বজায় রাখতে পারবেন।

টিএসি সিকিউরিটির সিইও ও প্রতিষ্ঠাতা ত্রিশনেত অরোরা বলেন, ‘আমরা সব সময় আমাদের লক্ষ্যে অবিচল। আমাদের কর্মীদের বেশির ভাগের বয়স কম। তাই কর্মীদের চাপ কমাতে আমরা যেকোনো পরীক্ষা–নিরীক্ষা করতেই পারি। কর্মদক্ষতা ও সৃজনশীলতার মান বজায় রেখেও কর্মীদের স্বাস্থ্য এবং ভালো থাকা আমাদের কাছে সবচেয়ে বেশি অগ্রাধিকার পায়। আমরা সবার জন্য একটা দৃষ্টান্তও তৈরি করতে চাই।’

default-image

প্রতিষ্ঠানটি অফিসের কর্মীদের নিয়ে একটি জরিপ করেছে। কর্মীদের ৮০ শতাংশই এ চার দিনের অফিসের নিয়মে কাজ করতে আগ্রহী। কারণ, এর ফলে তিন দিন ছুটি মেলে। এ সময় পারিবারিক কাজ ও পেশা দক্ষতার জন্য বিভিন্ন কোর্সও করা যায় অথবা পড়াশোনা করা যায়। আর এতে কর্মীদের দক্ষতা বাড়লে প্রতিষ্ঠানেরই লাভ।

নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কর্মীরা যেন সর্বাধিক কাজ করতে পারেন, তার জন্য সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থা তৈরি করেছে টিএসি সিকিউরিটি। নতুন এ নিয়মে সপ্তাহে চার দিন আরও বেশি সময় অফিসে থাকতে হচ্ছে কর্মীদের। এতে কাজের সময়ের বাইরে সংস্থার কোনো কর্মীকেই অপর সহকর্মীরা কোনো কাজের বিষয়ে বিরক্ত করতে পারেন না। কিন্তু তা সত্ত্বেও বাকি তিন দিন নিজেদের মতো করে সময় কাটাতে পারেন তাঁরা। এ নিয়মে সন্তুষ্ট বেশির ভাগ কর্মী।

পরামর্শ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন