বিজ্ঞাপন

ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থী শিকদার মাহবুব বলেন, ‘দেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ব্যতীত সবকিছুই চলছে। মার্কেটগুলোতে গেলে পা ফেলার জায়গা পাওয়া যায় না। কিন্তু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এমন কোনো পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার সুযোগ নেই। তা ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের বলা হয় জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। সমগ্র বাংলাদেশে প্রায় ৪২ হাজার শিক্ষার্থী এ করোনা মহামারির সময়েও সমাজকর্মী হিসেবে কাজ করেছেন, সচেতনতা তৈরি করেছেন। এই শিক্ষার্থীরা নিজেরা সচেতন বলেই অন্যকে সচেতন করতে পারছেন। তাই বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দিলে শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবেন না, এমন ভাবনা অযৌক্তিক। এ কারণে শিক্ষার্থীদের জীবনের মূল্যবান সময় আর কেড়ে না নিয়ে অবিলম্বে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হল-বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।’
প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব রোধের অংশ হিসেবে প্রায় ১৪ মাসের অধিক সময় ধরে বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।

শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন