বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রশ্ন: পানির তিনটি অবস্থা কী কী?

উত্তর: পানির তিনটি অবস্থা হলো—কঠিন, তরল ও বায়বীয়।

প্রশ্ন: উদ্ভিদ ও মানবদেহের মধ্যে কত ভাগ পানি রয়েছে?

উত্তর: উদ্ভিদের দেহে প্রায় ৯০ ভাগ এবং মানবদেহে ৬০-৭০ ভাগ পানি রয়েছে।

প্রশ্ন: পানি কীভাবে দূষিত হচ্ছে?

উত্তর: মানুষের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড পানিদূষণের জন্য দায়ী। কৃষিকাজে ব্যবহৃত কীটনাশক, কলকারখানার রাসায়নিক দ্রব্য, গৃহস্থালির বর্জ্য ইত্যাদির মাধ্যমে পানি দূষিত হয়।

প্রশ্ন: বৃষ্টি কী?

উত্তর: সূর্যতাপের ফলে পুকুর, খাল-বিল, নদী ও সমুদ্রের পানি জলীয় বাষ্পে পরিণত হয়। জলীয় বাষ্পের ক্ষুদ্র পানিকণা ঠান্ডায় ঘনীভূত হয়ে মেঘ সৃষ্টি করে। মেঘের পানিকণাগুলো একত্র হয়ে আরও বড় বিন্দু আকারে ভূপৃষ্ঠে পতিত হলে তাকে বৃষ্টি বলে।

প্রশ্ন: মেঘ কীভাবে সৃষ্টি হয়?

উত্তর: সূর্যতাপে সাগর ও নদীর পানি বাষ্পীভূত হয়ে জলীয় বাষ্পে পরিণত হয়। বাষ্পীভূত পানি ওপরে উঠে ঠান্ডা ও ঘনীভূত হয়ে পানির বিন্দুতে পরিণত হয়। ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র পানির বিন্দু একত্র হয়ে মেঘ সৃষ্টি হয়।

প্রশ্ন: পানি দেহের কী কাজ করে?

উত্তর: আমরা যখন খাদ্য গ্রহণ করি, তখন পানি সেই খাদ্য পরিপাকে সাহায্য করে। পানি
পুষ্টি উপাদান শোষণ করে দেহের প্রতিটি
অঙ্গে তা পরিবহনে সাহায্য করে। দেহের স্বাভাবিক তাপমাত্রা বজায় রাখতেও পানি সহায়তা করে।

প্রশ্ন: পানি শোধনের দুটি উপায় লেখো।

উত্তর: পানি শোধনের দুটি উপায় হলো—

১.থিতানো ও ২. ফোটানো।

প্রশ্ন: পানির দুটি উৎসের নাম লেখো।

উত্তর: পানির দুটি উৎসের নাম হলো—

১.বৃষ্টি ও ২. নদী-নালা।

শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন