default-image

করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আরও কঠোর হচ্ছে ফ্রান্স। দেশজুড়ে স্বাস্থ্যবিধি মানার বাধ্যবাধকতার পাশাপাশি বিধিনিষেধের আওতাও বাড়ানো হয়েছে। বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। দেশটির প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাখোঁ স্থানীয় সময় গতকাল বুধবার টেলিভিশনে ভাষণে স্কুল বন্ধের কথা জানান।

বিবিসি ও আল–জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় আগামী তিন সপ্তাহ সব স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফ্রান্স। নতুন করে দেওয়া বিধিনিষেধের আওতায় এক মাস বাড়ার পরিকল্পনার কথা জানান দেশটির প্রেসিডেন্ট। আগামী শনিবার থেকে ফ্রান্সে জরুরি প্রয়োজনীয় দোকানপাট ছাড়া অন্য দোকানগুলো বন্ধ থাকবে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাসিন্দাদের নিজ নিজ বসতবাড়ি থেকে ১০ কিলোমিটারের চেয়ে দূরে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। দূরশিক্ষণের মাধ্যমে বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।

করোনা ছড়িয়ে পড়ায় বর্তমান পরিস্থিতিকে ‘নাজুক’ উল্লেখ করে মাখোঁ ভাষণে বলেন, ‘আমরা যদি এ মুহূর্তে পদক্ষেপ না নিই, তাহলে পরিস্থিতির ওপর নিয়ন্ত্রণ হারাব। দেশবাসীকে করোনা টিকার আওতায় আনা আর ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা—দুইয়ের মধ্যে প্রতিযোগিতা চলছে।’

বিজ্ঞাপন

চলতি মাসে ফ্রান্সের বিভিন্ন স্থানে লকডাউনের বিধিনিষেধ দেওয়া হয়েছিল।

বুধবার নতুন করে ৫৯ হাজার ৩৮ জন করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন। ফ্রান্সে এখন পর্যন্ত মোট ৪০ লাখ ৬০ হাজারের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৯৫ হাজার ৪৯৫ জন।

শিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন