default-image

ফুটবল খেলোয়াড়
প্রিয় শিক্ষার্থী, আজ বাংলা বিষয়ের ‘ফুটবল খেলোয়াড়’ নামক গল্প থেকে সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর দেওয়া হলো।
# সংক্ষেপে উত্তর দাও
প্রশ্ন: ইমদাদ হক কীভাবে জয় ছিনিয়ে আনে? ব্যাখ্যা করো।
উত্তর: ইমদাদ হক একজন জাত ফুটবল খেলোয়াড়। খেলা এবং খেলায় জেতার জন্যই সে ফুটবল খেলে। শারীরিক অবস্থা যা-ই হোক না কেন খেলায় জেতাটাই তার লক্ষ্য। সে খেলতে গিয়ে অনেক কষ্ট পায়। তবুও সে জীবন-মরণ পণে জেতার জন্য খেলে। খুব দ্রুত মাঠের বল নিয়ে দৌড় দেয়। গোল করেই সে খেলায় জয় ছিনিয়ে আনে।
প্রশ্ন: ইমদাদ হক ছটফট করে কেন?
উত্তর: ইমদাদ হক ফুটবল খেলতে গিয়ে হাতে-পায়ে আঘাত পায়। তার ভাঙা হাড়ে যখন লবেজান সেঁক দেয়, তখন ব্যথায় সারা রাত ছটফট করে সে।
প্রশ্ন: ইমদাদ হকের জীবনের লক্ষ্য কী?
উত্তর: ইমদাদ হকের জীবনের লক্ষ্য হলো ফুটবল খেলায় জয়লাভ করা। ইমদাদ হক ফুটবল পাগল। তার জীবনের ধ্যান-জ্ঞান ফুটবল খেলা। শরীরের কষ্ট উপেক্ষা করেও সে খেলে। সে খেলায় জয়লাভ করে সবাইকে আনন্দ দিতে চায়।

প্রশ্ন: ইমদাদ হকের আঘাতের ক্ষতে খ্যাতি লেখার কারণ কী?
উত্তর: ইমদাদ হকের হাতে-পায়ে আঘাতের ক্ষতে খ্যাতি লেখা রয়েছে। কারণ সে কষ্টকে পরোয়া না করে খেলে এবং তার জন্যই খেলায় জিত আসে।
প্রশ্ন: সেঁক দেওয়া বলতে কী বোঝো?
উত্তর: ‘সেঁক’ দেওয়া হলো আঘাতপ্রাপ্ত স্থানে নেকড়া হালকা গরম করে পটি দেওয়া। এতে ব্যথা অনেক কমে যায়।
প্রশ্ন: ইমদাদ হক সারা রাত কেঁদে কেঁদে ডাক ছাড়ে কেন?
উত্তর: ইমদাদ হক প্রতিদিন ফুটবল খেলে হাতে-পায়ে শত শত আঘাত পায়। তার আঘাতের জায়গায় মেসের চাকর সেঁক দিলে সে সারা রাত কেঁদে কেঁদে ডাক ছাড়ে।
প্রশ্ন: মেসের চাকর লবেজান হয় কেন?
উত্তর: ইমদাদ হক প্রতিদিন ফুটবল খেলে হাতে পায়ে শত আঘাতের চিহ্ন নিয়ে মেসে ফেরে। মেসের চাকর তার আঘাতে পটি দিয়ে সেঁক দিতে দিতে ক্লান্ত হয়ে যায় বলে তাকে লবেজান হতে হয়।
প্রশ্ন: বিরামচিহ্ন বসিয়ে অনুচ্ছেদটি পুনরায় লেখো।
জাত খেলোয়াড় ইমদাদ হক খেলা এবং খেলায় জেতাই তার জীবনের একমাত্র লক্ষ নিজের অবস্থা যেমনই হোক না কেন খেলা-পাগল সে খেলবে খেলতে গিয়ে তার নিজের শারীরিক অবস্থা যা-ই হোক না কেন জেতাটাই আসল
উত্তর: জাত খেলোয়াড় ইমদাদ হক। খেলা এবং খেলায় জেতাই তার জীবনের একমাত্র লক্ষ। নিজের অবস্থা যেমনই হোক না কেন খেলা-পাগল সে খেলবে। খেলতে গিয়ে তার নিজের শারীরিক অবস্থা যাই হোক না কেন জেতাটাই আসল।
# বাকি অংশ ছাপা হবে আগামীকাল
সিনিয়র শিক্ষক
আন-নাফ গ্রিন মডেল স্কুল, ঢাকা

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0