default-image

আগামী শিক্ষাবর্ষ (২০২১-২২) থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ঘ-ইউনিট ও চারুকলা অনুষদভুক্ত চ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা না নেওয়ার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন'স কমিটি৷ পাঁচটি ইউনিটের পরিবর্তে তিনটি ইউনিটের আওতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার পরিকল্পনা কর্তৃপক্ষের৷ তবে চলতি শিক্ষাবর্ষে (২০২০-২১) আগের নিয়মেই পাঁচটি ইউনিটের আওতায় পরীক্ষা নেওয়া হবে।

আজ রোববার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন'স কমিটির এক সভায় উপাচার্য ঘ ও চ ইউনিট বন্ধের প্রস্তাব তোলেন৷ উচ্চমাধ্যমিকে শিক্ষার্থীরা যে তিন ধারায় (বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা) পড়াশোনা করেন, তার আলোকেই ভর্তি পরীক্ষার তিনটি ইউনিট করতে চান উপাচার্য৷ সভায় এটি নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে আলোচনা হয়৷ সেখানে বেশির ভাগ ডিন প্রস্তাবের পক্ষে মত দেন৷ তবে একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় বিষয়টি চূড়ান্ত হবে৷

বিজ্ঞাপন

তবে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক সাদেকা হালিম এই সিদ্ধান্তকে যৌক্তিক বলে মনে করছেন না৷ তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘পরীক্ষা কমানোর ভাবনা থেকে সভায় উপাচার্য ঘ-ইউনিট ইউনিট বন্ধ করার প্রস্তাব তোলেন৷ তিনি বলেন যে, ভর্তি পরীক্ষার ইউনিট বেশি হয়ে গেছে৷ আইন অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক মো. রহমত উল্লাহ ও কলা অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক আবু মো. দেলোয়ার হোসেন উপাচার্যের প্রস্তাবে সমর্থন দেন৷ কিন্তু এটি সমর্থন-অসমর্থনের কোনো বিষয় নয়৷

অধ্যাপক সাদেকা হালিম বললেন, ‘সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের একটা স্বকীয়তা আছে৷ এই অনুষদের ১৬টি বিভাগ থেকে সরকারি ও বেসরকারি নানা সেক্টরে শিক্ষার্থীরা যাচ্ছেন, ভালো করছেন৷ তিন শতাধিক শিক্ষক এই অনুষদে পাঠদান করেন৷ শিক্ষকেরা নিজস্ব পরীক্ষা চান৷ আমার বক্তব্য, আমাদের অনুষদের জন্য (সামাজিক বিজ্ঞান) স্বতন্ত্র ইউনিট হওয়া উচিত৷ তা না পারলে কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ নামে ভর্তি পরীক্ষার ইউনিট করতে হবে৷ একাডেমিক কাউন্সিলে অবশ্যই এটি নিয়ে আলোচনা হবে৷’

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, ‘উচ্চমাধ্যমিকের শিক্ষার্থীরা যে তিনটা ধারায় পড়াশোনা করেন, অর্থাৎ- বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ; সেই তিন ধারাকে বিবেচনায় রেখে তিনটি ইউনিটে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হবে৷ পাঁচ ইউনিটের পরিবর্তে তিনটি ইউনিটের আওতায় পরীক্ষাগুলো নেওয়া হবে৷ ইউনিটের যেকোনো নামকরণ হতেই পারে৷ এতে যেটা হবে, পরীক্ষা নেওয়ার চাপ কমে আসবে৷ তবে চলতি শিক্ষাবর্ষে (২০২০-২১) আগের নিয়মেই পরীক্ষা হবে৷’ সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিনের আপত্তির বিষয়ে উপাচার্যের মন্তব্য, ‘এই সিদ্ধান্ত ব্যক্তিপর্যায়ের কোনো ব্যাপার নয়৷’

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ মনে করেন, ঘ ও চ ইউনিট বন্ধের মতো সিদ্ধান্ত নিতে হবে ভেবে-চিন্তে৷ চলতি বছরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা বিভাগীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানালেন তিনি৷

প্রসঙ্গত, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘ-ইউনিটে বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা- এই তিন বিভাগের শিক্ষার্থীরাই আবেদন করতে পারেন৷ সামাজিক বিজ্ঞান ও কলা অনুষদের বিভিন্ন বিভাগ এবং বিজ্ঞানবিষয়ক কয়েকটি বিষয়ে এই ইউনিট থেকে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়৷

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0