বিজ্ঞাপন

চুয়েট, কুয়েট ও রুয়েটের সমন্বিত ভর্তি কমিটির সভাপতি মো. রবিউল আলম ও সদস্যসচিব মো. মইনুল ইসলামের যৌথ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এসব তথ্য জানানো হয়। এ ছাড়া চুয়েট, কুয়েট ও রুয়েটের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে (https://www.admissionckruet.ac.bd) এসব তথ্য জানানো হয়েছে।
৩ হাজার ২০১টি আসনের জন্য যোগ্য আবেদনকারীর মধ্য থেকে উচ্চমাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় গণিত, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও ইংরেজি বিষয়ের মোট নম্বরের ভিত্তিতে শীর্ষ ৩০ হাজার জনকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়া হবে। ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য যোগ্য শিক্ষার্থীদের তালিকা আগামী ২ জুন প্রকাশ করা হবে।

পরীক্ষার বিষয় ও মানবণ্টন
এবারের ভর্তি পরীক্ষায় সাধারণ প্রকৌশল বিভাগসহ নগর ও পরিকল্পনা বিভাগ, অর্থাৎ গ্রুপ ‘ক’-তে এমসিকিউ পদ্ধতিতে ৫০০ নম্বর। প্রকৌশলের পাশাপাশি স্থাপত্য বিভাগ নিয়ে গ্রুপ ‘খ’-তে ৭০০ নম্বরের এমসিকিউ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

পরীক্ষায় আবেদনের ভিত্তিতে সারা দেশ থেকে সেরা ৩০ হাজার আবেদন গ্রহণ করা হবে। আবেদনের যোগ্যতা হিসেবে ২০১৭ অথবা ২০১৮ সালে মাধ্যমিক কিংবা সমমানে সর্বনিম্ন জিপিএ-৪ এবং উচ্চমাধ্যমিকে উচ্চতর গণিত, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও ইংরেজিতে আলাদাভাবে জিপিএ-৫ নিয়ে মোট গ্রেড ২০ থাকতে হবে।

এর আগে গত ২০ এপ্রিল ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে চুয়েট, কুয়েট ও রুয়েটের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা কমিটি। এতে বলা হয়েছিল, আগামী ১২ জুন সকাল ১০টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ‘ক’ গ্রুপের (ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগগুলো এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ) এবং সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত ‘খ’ গ্রুপের (ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগগুলো, নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ এবং স্থাপত্য বিভাগ) ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে । এখন পরিবর্তিত তারিখ অনুযায়ী আগামী ১২ আগস্ট পূর্বঘোষিত সময় অনুযায়ী প্রকৌশল গুচ্ছের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

ভর্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন