রিপোর্ট অনুযায়ী, জমিরের নন–হজকিনস লিম্ফোমার মধ্যে ডিফিউজ লার্জ বি–সেল লিম্ফোমা টাইপ ক্যানসার (তৃতীয় স্টেজ), যার চিকিৎসা খুবই ব্যয়বহুল। দেশে চিকিৎসা করে সুস্থ হওয়া প্রায় অসম্ভব। এ জন্য ভারতের মুম্বাইয়ে টাটা মেমোরিয়াল ক্যানসার হাসপাতালে চিকিৎসা করা প্রয়োজন। চিকিৎসা ব্যয় বাবদ ৬০ থেকে ৭০ লাখ টাকা লাগবে।

জমিরের বাবা রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারী। পরিবারের সামান্য সঞ্চয়, আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুবান্ধবের সহায়তায় দেশেই জমিরের কেমোথেরাপি শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে জমিরের চিকিত্সা বাবদ চার থেকে পাঁচ লাখ টাকা ব্যয় হয়ে গেছে।

নিজ পরিশ্রমে এতটা পথ পাড়ি দিয়ে জীবন উপভোগের সময়ে সৃষ্টিকর্তা তাকে কঠিন পরীক্ষার মধ্যে রেখেছে। ক্যানসারের মতো দুরারোগ্য, সময়সাপেক্ষ ও ব্যয়বহুল চিকিৎসা জমিরের পরিবারের একার পক্ষে বহন করা সম্ভব নয়। এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে তার স্ত্রী ও অনাগত সন্তানের জীবনটা সুন্দর করার ক্ষুদ্র প্রচেষ্টায় আপনাদের সামান্য সহযোগিতা হতে পারে বড় পরিবর্তনের কারণ।

default-image

বাবা আজ তাঁর সন্তানের চিকিৎসার অর্থের জন্য আপনাদের নিকট হাত পেতেছেন। টিউশনি করে বিশ্ববিদ্যালয়জীবনে নিজের খরচ চালানো আমার বন্ধু জমির আজ আপনাদের সাহায্যপ্রার্থী। আপনাদের আর্থিক সাহায্যের সঙ্গে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জিনিসটা হলো আপনাদের দোয়া। আপনি সৃষ্টিকর্তার কাছে হাত তুললে সেখানে আমার বন্ধুর নামটি রাখার অনুরোধ রইল।

আমি চাই, আমরা চাই আমার বন্ধুকে আমাদের মধ্যে ফিরিয়ে আনতে। ভীষণভাবে চাই, সেই হাসিমাখা মুখে দৌড়ে এসে জড়িয়ে ধরুক আমাকে, আমাদের।

*সাহায্য পাঠানোর মাধ্যম

জমিরের বাবার নগদ ও বিকাশ নম্বর: ০১৬১৭৪৪৫২২০

ব্যাংক হিসাব

হিসাবের নাম: মো. আফসার

হিসাব নম্বর: ২২০৯০০২২১৪৪২৪

সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, পাংশা শাখা, রাজবাড়ী।

ক্যাম্পাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন