টেডএক্স কুয়েট দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে যে মানুষের উদ্ভাবনী শক্তি দ্বারা বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে এ বিশ্বকে পরিবর্তন করা সম্ভব। তরুণ প্রজন্মকে উদ্যোক্তা হতে উৎসাহিত করা এবং আইডিয়ার বাস্তবায়ন ও চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় পারদর্শী করে তোলা এ আয়োজনের অন্যতম উদ্দেশ্য।

আয়োজক দলের প্রধান আবদুল্লাহ আল সাদ বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের আন্তর্জাতিক প্ল্যাটফর্ম ও নিজ নিজ ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত বিখ্যাত ব্যক্তিদের সঙ্গে নেটওয়ার্ক প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করছে টেডএক্স কুয়েট। আমরা আশাবাদী এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তরুণ প্রজন্মের উদ্যোক্তা নির্ভর মানসিকতা বৃদ্ধি পাবে ও অতিথিদের বক্তব্য থেকে মোটিভেট হয়ে চ্যালেঞ্জ নেওয়ার সক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে।’

অনুষ্ঠানটিতে উপস্থিত ছিলেন অভিনেত্রী আফসানা মিমি, কার্টুনিস্ট অন্তিক মাহমুদ, শিখো এডুটেকের সহপ্রতিষ্ঠাতা জিসান জাকারিয়া, পাঠাও–এর প্রডাক্ট ইঞ্জিনিয়ার ও সহপ্রতিষ্ঠাতা আহমেদ ফাহাদ, মনের স্কুলের সহপ্রতিষ্ঠাতা ফাইরুজ ফাইজা বিথার, বসুন্ধরা গ্রুপের জনসংযোগ বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী জাকারিয়া জালাল, গ্লোবাল আন্ডারগ্র্যাজুয়েট পুরস্কারজয়ী মাসুদা খান, ইরিকসন জাপানের প্রোগ্রাম ডিরেক্টর জুলকারনাইন ইবনে তাহসিন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মিহির রঞ্জন হালদার, পরিচালক ছাত্রকল্যাণ, সম্মানিত শিক্ষকসহ আরও অনেকে।

অনুষ্ঠানের শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করেন মোমরোজ মাহমুদ ও তাঁর দল। অনুষ্ঠানটির সার্বিক তত্ত্বাবধান ও আয়োজক হিসেবে কাজ করেছে কুয়েটের বিজনেস ও উদ্যোক্তা–বিষয়ক ক্লাব কেবিইসি। অনুষ্ঠানটির ইভেন্ট স্পনসর পোলার আইসক্রিম ও ওস্তাদ। মিডিয়া পার্টনার প্রথম আলো, সময় টেলিভিশন, বাংলা ট্রিবিউন ও ডেইলি অবজারভার। রেডিও পার্টনার কুয়েট রেডিও।