বিজ্ঞাপন

প্রশ্ন: অধিক জনসংখ্যা শিক্ষার ওপর কী প্রভাব ফেলছে?

উত্তর: শিক্ষার ওপর অধিক জনসংখ্যার ২টি প্রভাব হলো—

১. দরিদ্রতার কারণে অনেক পিতা-মাতা তাদের সন্তানদের বিদ্যালয়ে পাঠাতে পারে না।

২. বিদ্যালয়ে ভর্তি হলেও অনেক শিশু পরিবারের কাজে সাহায্য করতে গিয়ে লেখাপড়া শেষ না করে ঝরে পড়ে।

প্রশ্ন: মানবসম্পদ উন্নয়নের তিনটি উপায় লেখ।

উত্তর: মানবসম্পদ উন্নয়নের তিনটি উপায় হলো:

১. শ্রমশক্তি রপ্তানি

২. মৌলিক শিকার উন্নয়ন

৩. বিশেষায়িত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষতা বৃদ্ধি।

প্রশ্ন: দেশে শিক্ষার হার বাড়ানোর জন্য দুটি করণীয় লেখো।

উত্তর: দেশের শিক্ষার হার বাড়ানোর ক্ষেত্রে করণীয়:

১. শতভাগ সাক্ষরতার হার নিশ্চিত করতে হবে। অর্থাৎ সকল শিশুকেই স্কুলে পাঠাতে হবে।

২. শিক্ষার মান বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

প্রশ্ন: দক্ষ জনশক্তি উন্নয়নের ক্ষেত্রে দুটি করণীয় লেখো।

উত্তর: দক্ষ জনশক্তি উন্নয়নের ক্ষেত্রে দুটি করণীয়:

১. কারিগরি শিক্ষার উন্নয়ন করা

২. বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ কর্মসূচির ব্যবস্থা করা।

প্রশ্ন: জনসংখ্যা সমস্যার সমাধানগুলো কী?

উত্তর: জনসংখ্যা সমস্যার সমাধান করতে নিচের বিষয়গুলোর উন্নয়ন প্রয়োজন। যেমন খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, পরিবেশ, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, দক্ষতার উন্নয়ন, বাণিজ্যিক ভারসাম্য।

প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।

প্রশ্ন: অধিক খাদ্য উৎপাদনের মাধ্যমে আমাদের দেশের জনগণ কীভাবে উপকৃত হতে পারে?

উত্তর: আমাদের মৌলিক চাহিদার মধ্যে প্রধান হচ্ছে খাদ্য। বাংলাদেশ কৃষিপ্রধান দেশ হওয়া সত্ত্বেও কয়েক বছর আগেও প্রায় ২৫ লাখ টন খাদ্য আমদানি করতে হতো। বর্তমানে আমরা সবার জন্য খাদ্য উৎপাদন করতে সক্ষম। অধিক খাদ্য উৎপাদনের মাধ্যমে আমাদের দেশের জনগণ বিভিন্নভাবে উপকৃত হতে পারে। যেমন—

ক. বাংলাদেশে আর খাদ্যঘাটতি থাকবে না এবং খাদ্য আমদানি করতে হবে না।

খ. দেশ আর্থিকভাবে লাভবান হবে এবং উন্নয়নের দিকে ধাবিত হবে।

গ. খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ জাতি শিক্ষা ও কর্মক্ষেত্রে দক্ষ হয়ে উঠবে।

ঘ. খাদ্য আমদানিতে যে অর্থ ব্যয় হতো সেটি নিজের দেশের বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠায় ব্যবহার করা সম্ভব হবে।

ঙ. শিল্পপ্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠায় কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে এবং দারিদ্র্যতা দূর হবে।

পরীক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন