default-image

দেশে শিক্ষার্থীদের বড় একটা অংশ উচ্চশিক্ষা নেওয়ার জন্য বিদেশে পাড়ি জমান। আবার অনেকে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার অনেক খরচের কথা চিন্তা করে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন না। ২০০৩ সালে উচ্চশিক্ষায় বিদেশমুখীনতা কমাতে এবং দেশের মানুষের আর্থিক সাশ্রয়ের কথা চিন্তা করে যাত্রা শুরু করে ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। দেশে বসেই আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষা অর্জনের লক্ষ্যে কিছু বিদ্যানুরাগী শিল্পপতি ও প্রথিতযশা শিক্ষাবিদদের উদ্যোগে ইউনাইটেড গ্রুপের আর্থিক আনুকূল্যে ২০০৩ সালের অক্টোবর মাসে মাত্র ৭৬ জন শিক্ষার্থী নিয়ে ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির (ইউআইইউ) পথচলা শুরু।

default-image

দেশি ও আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি

দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলে শিক্ষা ও গবেষণার ক্ষেত্রে একটি অন্যতম প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়ে যাত্রা শুরু করে ইউআইইউ। শুরু থেকেই ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ভিন্নধারায় ও স্বতন্ত্র মাত্রায় দেশের উচ্চশিক্ষার গুণগত মানোন্নয়নে সচেষ্ট রয়েছে। ইউআইইউ ২০১৯ থেকে ২০২১ পর্যন্ত ধারাবাহিকভাবে কিউএস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে অন্যতম শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে। দ্য ইমপ্যাক্ট র‌্যাঙ্কিংস এসডিজি-১ ক্যাটাগরিতে বিশ্বের ৮০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে স্থান করে নিয়েছে। ইউআইইউর বিজনেস স্কুল বিশ্বখ্যাত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ‘এসিবিএসপি’ কর্তৃক স্বীকৃত বা অ্যাক্রেডিটেড। বাংলাদেশে প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে ইউআইউ বিনা শর্তে ১০ বছরের জন্য এ স্বীকৃতি অর্জন করেছে। এ ছাড়া বিবিএ ইন এআইএস ডিপার্টমেন্ট ‘সিআইএমএ (সিমা)’ কর্তৃক স্বীকৃত বা অ্যাক্রেডিটেড। ইঞ্জিনিয়ারিং স্কুল ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (আইবি) কর্তৃক স্বীকৃত বা অ্যাক্রেডিটেড।

বিজ্ঞাপন
default-image

আধুনিক সুযোগ-সুবিধাসংবলিত

ঢাকার বাড্ডায় সবুজে ঘেরা সুবিশাল দৃষ্টিনন্দন ক্যাম্পাস। ঢাকার গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলো থেকে ক্যাম্পাসে আসার জন্য শিক্ষার্থীদের পরিবহন–সুবিধা আছে। সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মান। ইউআইইউর দক্ষ এবং অভিজ্ঞ শিক্ষকদের পাঠদান, আন্তরিক প্রচেষ্টায় শিক্ষার্থীরা সন্তুষ্ট। ইউআইইউতে শতভাগ পূর্ণকালীন শিক্ষক-শিক্ষিকার মাধ্যমে আন্ডারগ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রামসমূহ পরিচালনা করা হয়। সন্ধ্যাকালীন মাস্টার্স প্রোগ্রামগুলোতে দেশের প্রথিতযশা স্বল্পসংখ্যক খণ্ডকালীন শিক্ষক-শিক্ষিকা পাঠদান করে থাকেন। তাঁরা সব সময় পড়াশোনাসহ সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে ছাত্রছাত্রীদের উৎসাহ প্রদান করেন। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতি ট্রাইমেস্টারে মেধাভিত্তিক ১৫ শতাংশ শিক্ষার্থীকে ২৫ থেকে ১০০ শতাংশ পর্যন্ত বৃত্তি দেওয়া হয়।

default-image

এক ক্যাম্পাসে সব সুবিধা

ইউআইইউ শিক্ষার্থীদের ক্লাসের ফাঁকে বা অবসরে পড়াশোনার জন্য রয়েছে একটি সুবিশাল লাইব্রেরি। রয়েছে আন্তর্জাতিক মানের মাল্টিমিডিয়া শীতাতপনিয়ন্ত্রিত ১০০টি স্মার্ট শ্রেণিকক্ষ। ভবনের সামনেই আছে সুবিশাল দৃষ্টিনন্দন ২০ বিঘা একটি খেলার সবুজ মাঠ। আরও আছে বিশাল আকারের অডিটরিয়াম, যেখানে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মানের কনফারেন্স, সেমিনারসহ নানা ধরনের সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড হয়ে থাকে। এ ছাড়া রয়েছে একটি আধুনিক জিমনেসিয়াম, ক্যাফেটেরিয়া এবং নামাজকক্ষ। হাতে–কলমে শিক্ষাদানের জন্য ইউআইইউতে সার্কিট ল্যাব, মেশিন অ্যান্ড পাওয়ার সিস্টেম ল্যাব, ডিজিটাল ডিজাইন ল্যাব, কম্পিউটার ল্যাব, মাইক্রোপ্রসেসর ল্যাব, হাইড্রোলিক্স ল্যাব, সার্ভেয়িং ল্যাব, এসএম ল্যাব ও ইলেকট্রনিকস ল্যাবসহ ৩০টি ল্যাব রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টি তার শিক্ষার্থীদের আন্তর্জাতিক মানের যোগ্যতাসম্পন্ন করে গড়ে তোলার জন্য বছরে একাধিক আন্তর্জাতিক কনফারেন্সের আয়োজন করার ফলে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আন্তর্জাতিক অঙ্গনের সঙ্গে যোগসূত্র তৈরির সুযোগ পায়।

default-image

যেসব বিষয় পড়ানো হয়

ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে (ইউআইইউ) তিনটি স্কুলের মাধমে বিভিন্ন বিষয়ে পড়ানো হয়। বর্তমানে ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে আন্ডারগ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রামগুলো হচ্ছে ব্যাচেলর অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (বিবিএ), বিবিএ ইন এআইএস (অ্যাকাউন্টিং ইনফরমেশন সিস্টেম), ব্যাচেলর অব সায়েন্স ইন ইকোনমিকস, বিএসসি ইন কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, বিএসসি ইন ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং, বিএসসি ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং, বিএসএস ইন এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ (ইডিএস)।
গ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রামগুলো হচ্ছে মাস্টার অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এমবিএ), এক্সিকিউটিভ এমবিএ, এমএস ইন ইকোনমিকস, মাস্টার ইন ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ (এমডিএস), এমএসসি ইন কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, মাস্টার ইন ইন্টারন্যাশনাল হিউম্যান রিসোর্সেস ম্যানেজমেন্ট (এমআইএইচআরএম)। এ ছাড়া সিসকো নেটওয়ার্কিং একাডেমি, সিডিআইপি, আইবিইআর, সিইআর ও পিইটিএর মাধ্যমে এখানে বেশ কয়েকটি ডিপ্লোমা ও শর্ট কোর্স পরিচালনা করা হয়।

ভর্তির প্রক্রিয়া

ভর্তির ক্ষেত্রে ইউজিসির ভর্তি নীতিমালা অনুসরণ করা হয় এবং ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে ভর্তি হতে হয়। মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় পৃথকভাবে ন্যূনতম ২.৫ সিজিপি পাওয়া শিক্ষার্থীদের আন্ডারগ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রামে ভর্তির জন্য ফরম সংগ্রহ করতে পারেন। উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় জিপিএ–৫ পাওয়া এবং ইংলিশ মিডিয়াম ‘ও’ লেভেলে ন্যূনতম ২.৫ এবং ‘এ’ লেভেলে ন্যূনতম ২ থাকা সাপেক্ষে যদি কোনো শিক্ষার্থীর ‘ও’ লেভেলে চারটি ‘এ’ থাকে, তাহলে সরাসরি ভর্তি হতে পারবে। একজন শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য অনলাইনে অথবা অফলাইনে আবেদন ফরম নিতে পারে এবং ভর্তিপ্রক্রিয়াটি অফলাইন বা অনলাইনের মাধ্যমে সম্পন্ন করতে পারে।

default-image

স্কলারশিপ বা বিশেষ সুযোগ–সুবিধাসমূহ

ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য স্কলারশিপ বা বিশেষ সুযোগ–সুবিধার ব্যবস্থা রয়েছে। উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় জিপিএ–৫ প্রাপ্ত ছাত্রছাত্রীদের ২৫ শতাংশ এবং গোল্ডেন–৫ প্রাপ্তদের ৫০ শতাংশ পর্যন্ত টিউশন ফির ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। ইংলিশ মিডিয়াম শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে সর্বোচ্চ ২৫ থেকে ১০০ শতাংশ পর্যন্ত টিউশন ফি ছাড়ের ব্যবস্থা। এ জন্য ন্যূনতম ‘ও’ লেভেলে ৪টি ‘এ’ থাকতে হবে আর ১০০ শতাংশ এর জন্য ‘ও’ লেভেলে ৫টি ‘এ’ আর ‘এ’ লেভেলে ১টি ‘এ’ ও ১টি ‘বি’ থাকতে হবে। এ ছাড়া প্রতি ট্রাইমিস্টার ফাইনাল রেজাল্টের ওপর ভিত্তি করে ১৫ শতাংশ শিক্ষার্থীর ২৫ থেকে ১০০ শতাংশ পর্যন্ত টিউশন ফি ছাড়ের ব্যবস্থা রয়েছে। মোট শিক্ষার্থীর শতকরা ৩ শতাংশ হারে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের ফ্রি পড়ার বিশেষ ব্যবস্থা রয়েছে। এ ছাড়া এখানে ভাইবোন, উপজাতীয় কোটা, সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য টিউশন ফি ছাড়ের ব্যবস্থা আছে। এ ছাড়া ছাত্রছাত্রীরা চারটি কিস্তির মাধ্যমে টিউশন ফি জমা দিতে পারে এবং শিক্ষার্থীদের প্রয়োজন অনুযায়ী সুদমুক্ত ঋণের ব্যবস্থা আছে।

ক্রেডিট ট্রান্সফারের সুবিধা

ইউআইইউ শিক্ষার্থীরা চাইলে ক্রেডিট ট্রান্সফার করে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন শীর্ষস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে পারে। ইউআইইউর সঙ্গে আমেরিকা, কানাডা, ইউকে, জাপান, পর্তুগাল, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে একাডেমিক কোলাবরেশন আছে। এগুলোর মধ্যে টেক্সাস এঅ্যান্ডএম বিশ্ববিদ্যালয় কিংসভিল—ইউএসএ, মিনেসোটা ক্রুকস্টন বিশ্ববিদ্যালয়-ইউএসএ, ব্র্যাডফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়—ইউকে, নিউ ব্রান্সউইচ বিশ্ববিদ্যালয়—কানাডা, ওয়াকানাই হোসুসি গাকুয়েন বিশ্ববিদ্যালয় - জাপান, পোর্তো বিশ্ববিদ্যালয়-পর্তুগাল, ইউনিভার্সিটি মালয়েশিয়া পাহাং-মালয়েশিয়া, চৌধুরী বানসী লাল বিশ্ববিদ্যালয় ভারত অন্যতম। এ ছাড়া বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে স্টুডেন্ট এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রাম পরিচালনা করা হয়।
ভর্তি ফি বা খরচ
ইউআইইউতে আন্ডারগ্র্যাজুয়েট এবং গ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রামগুলোতে পড়তে খরচের বিস্তারিত https://bit.ly/3uBCKLh এ লিংকে পাওয়া যাবে।
ঠিকানা
ইউআইইউ ক্যাম্পাস, ইউনাইটেড সিটি, মাদানী অ্যাভিনিউ, বাড্ডা, ঢাকা ১২১২। ফোন: +৮৮ ০৯৬০৪-৮৪৮-৮৪৮। ওয়েবসাইট: www.uiu.ac.bd

বিজ্ঞাপন
উচ্চশিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন