default-image

একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে যে বিশেষ উপাদানগুলো থাকা দরকার, তা হলো ভালো মানের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, ভৌত অবকাঠামো এবং শিক্ষা ও গবেষণার পরিবেশ। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে এই দিকগুলো বেশ শক্তিশালী এবং আমরা আরও উন্নয়ন করছি। দেশবরেণ্য শিক্ষকেরা এখানে শিক্ষা ও গবেষণায় নিয়োজিত আছেন। যেমন জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, কায়সার হামিদুল হক, সলিমুল্লাহ খান, আবদুল মান্নান, ইমরান রহমান, সামশাদ মর্তুজা, মিলন কুমার ভট্টাচার্য, মোহাম্মদ ইব্রাহিমসহ গুণী শিক্ষাবিদেরা। তাঁরা আমাদের প্রতিষ্ঠানকে সমৃদ্ধ করেছেন। যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড, কেমব্রিজ, যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড, ব্রাউন, কলাম্বিয়া, কর্নেলসহ বিশ্বের নামকরা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করা স্নাতকেরা সুনামের সঙ্গে আমাদের এখানে শিক্ষক ও গবেষক হিসেবে কর্মরত। ইউল্যাবের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের একনিষ্ঠ ও আন্তরিক প্রচেষ্টার ফলে আমরা করোনা শুরু হওয়ার পর থেকে মান অক্ষুণ্ন রেখে অনলাইনে শিক্ষা, গবেষণা ও অন্যান্য কার্যক্রম সফলভাবে চালিয়ে যাচ্ছি।

বিশ্ববিদ্যালয় হতে হলে তার একটা সুন্দর, স্থায়ী ক্যাম্পাস প্রয়োজন। ইউল্যাবের ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্যরা এ ব্যাপারে শুরু থেকেই সর্বাত্মক সহযোগিতা করেছেন। মোহাম্মদপুরে ২৭ বিঘা জমির ওপর আমাদের নান্দনিক স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মিত হয়েছে। সেখানে দৃষ্টিনন্দন ভবন আছে, লেক আছে, আছে আন্তর্জাতিক মানের খেলার মাঠ। এই ক্যাম্পাস আমাদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের গর্ব।

বিজ্ঞাপন

দেশবরেণ্য শিক্ষাবিদ, মোহাম্মদপুরে দৃষ্টিনন্দন স্থায়ী ক্যাম্পাস, শিক্ষা ও গবেষণা সহায়ক পরিবেশই ইউল্যাবের প্রধান বৈশিষ্ট্য। উৎসবমুখর পরিবেশ, শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের সক্রিয় অংশগ্রহণে এখানে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হয়। শিক্ষা কার্যক্রমের পাশাপাশি সহশিক্ষা কার্যক্রমও আমরা গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করি।

ভালো শিক্ষকদের শুধু নিয়োগ দিলেই হয় না, তাঁদের শিক্ষা ও গবেষণার পরিবেশ দিতে হয়। শিক্ষকদের যদি কর্মপরিবেশ, গবেষণার পরিবেশ ও তাঁদের কাজের স্বাধীনতা না দেওয়া হয়; তাহলে তাঁরা মুক্তচিন্তা করতে পারেন না। মুক্তচিন্তা না করলে নতুন কিছু সৃষ্টি হবে না। আমরা একদিকে সবচেয়ে ভালো শিক্ষক নিয়োগ দিয়েছি, অন্যদিকে এই শিক্ষকদের ধরে রাখার জন্য শিক্ষা ও গবেষণার একটা সুন্দর পরিবেশ তৈরি করেছি। এ জন্য এখানে আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষাবিদেরা আছেন। শিক্ষক ও গবেষকদের মান আমরা সফলভাবে ধরে রাখতে পেরেছি।

একজন শিক্ষার্থীকে আমরা সুনাগরিক ও মানসম্মত স্নাতক হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। তাই আমাদের একাডেমিক কার্যক্রমের সঙ্গে সহশিক্ষার ওপরও আমরা গুরুত্ব দিই। শিক্ষার্থীদের ২৩টি ক্লাব আছে, যেগুলোর মধ্যে অন্তত ২টির সদস্য হওয়া ছাত্রছাত্রীদের জন্য বাধ্যতামূলক।

অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, চীন, ভারত, মালয়েশিয়া, ইউক্রেন, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে ইউল্যাবের দ্বিপাক্ষিক সমঝোতা চুক্তি আছে; যার মাধ্যমে শিক্ষা, গবেষণা ও ছাত্র-শিক্ষক বিনিময় কার্যক্রম পরিচালিত হয়। আমাদের ইউল্যাবের স্নাতকেরা দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিদেশে শিক্ষা, গবেষণা ও নানা পেশায় যুক্ত আছে। ইউল্যাবের একজন স্নাতক ইউনিভার্সিটি অব রোড আইল্যান্ডের শিক্ষক। এ ছাড়া দেশের ভেতরে করপোরেট প্রতিষ্ঠান ও সরকারের প্রশাসনসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ পদে, ব্যাংক ও বহুজাতিক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ইউল্যাবের স্নাতকেরা সগৌরবে দায়িত্ব পালন করছে। ফেসবুকের মতো বিশ্বের বড় বড় প্রতিষ্ঠানে চাকরি করছে আমাদের ছাত্রছাত্রীরা।

বিজ্ঞাপন
উচ্চশিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন