বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জীবনের স্বাভাবিক গতিপ্রবাহ ঠিক রেখে সবার পড়াশোনা করা উচিত বলে মনে করেন জাকারিয়া। প্রথম আলোকে তিনি বলেন, অনেকে সবকিছু বাদ দিয়ে লেখাপড়া করে। যেমন ফেসবুক বন্ধ করে দেয়, কারও সঙ্গেই তেমন কথা বলে না। এটা যাতে কেউ না করে। সবকিছু ঠিক রেখে পাশাপাশি পড়াশোনা করা উচিত৷ বিশেষ করে বেশি বেশি দোয়া ও নামাজ পড়া উচিত। ভর্তি পরীক্ষার পুরোটাই ভাগ্যের ওপর নির্ভর করে। খুব ভালো শিক্ষার্থীরাও অনেক সময় পরীক্ষার হলে নার্ভাস হয়ে পড়েন। আমার খুব কাছের একজন বন্ধু ‘খ’ ইউনিটের পরীক্ষায় নার্ভাস হয়ে লিখতে পারেনি। সে ‘খ’ ইউনিটে ৩৬তম হয়েছে, যদিও গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় আবার সে প্রথম হয়েছে।

জাকারিয়া পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতে বৃত্তি পেয়েছিলেন। এ ছাড়া দাখিল ও আলিম পর্যায়েও জিপিএ–৫ পেয়েছেন। নিজের এসব অর্জনের পেছনে মায়ের ভূমিকাকে সবার ওপরে রাখছেন জাকারিয়া। তাঁর ভাষ্য, ‘আমার সব অর্জনের পেছনে মায়ের অবদান। খ ইউনিটে প্রথম হওয়ার পেছনেও তাঁর অবদানই বেশি। মায়ের কারণেই মূলত আমি এত দূর আসতে পেরেছি। মাদ্রাসায় শিক্ষকতার দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি মা আমার দিকে সব সময় সজাগ দৃষ্টি রাখতেন, আমার কাপড় ধোয়া থেকে শুরু করে সবকিছুই মা করে দিতেন।’

পরীক্ষার এক মাস পর আজ দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদভুক্ত খ ইউনিটের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। ৪১ হাজার ৫২৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছেন ৭ হাজার ১২ জন (পাসের হার ১৬.৮৯ শতাংশ)। ২ হাজার ৩৭৮ জন পরীক্ষার্থী এবার এই ইউনিটের মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাবেন।

খ ইউনিটে পরীক্ষা দেওয়া ভর্তি-ইচ্ছুক শিক্ষার্থীরা এখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট (https://admissions.eis.du.ac.bd) থেকে ফল জানতে পারছেন। এ ছাড়া রবি, এয়ারটেল, বাংলালিংক বা টেলিটক নম্বর থেকে ‘DU KHA <Roll No>’ ফরম্যাটে ১৬৩২১ নম্বরে এসএমএস পাঠিয়েও ফল জানা যাচ্ছে।
খ ইউনিটে প্রথম হয়েছেন ঢাকার দারুননাজাত সিদ্দিকীয়া কামিল মাদ্রাসার ছাত্র জাকারিয়া। তাঁর মোট নম্বর ১০০ দশমিক ৫০ (মূল পরীক্ষায় ১০০ নম্বরের মধ্যে ৮০ দশমিক ৫০)। দ্বিতীয় হয়েছেন চাঁদপুর সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী সামিয়া আক্তার। তাঁর মোট নম্বর ৯৫ দশমিক ৫০ (মূল পরীক্ষায় ১০০ নম্বরের মধ্যে ৭৫ দশমিক ৫০)। খ ইউনিটে তৃতীয় হয়েছেন রাজধানীর নটর ডেম কলেজের ছাত্র মুহাম্মদ খালিদ খান। তাঁর মোট নম্বর ৯৪ দশমিক ৭৫ (মূল পরীক্ষায় ১০০ নম্বরের মধ্যে ৭৪ দশমিক ৭৫)।

খ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ সব শিক্ষার্থীকে ৮ নভেম্বর বেলা তিনটা থেকে ১৫ নভেম্বর দুপুর চারটা পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে বিস্তারিত ফরম ও বিষয় পছন্দক্রম ফরম পূরণ করতে হবে। কোটায় আবেদনকারীদের ৩ থেকে ৯ নভেম্বর পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট কোটার ফরম কলা অনুষদের ডিন কার্যালয় থেকে সংগ্রহ করতে হবে এবং তা যথাযথভাবে পূরণ করে ওই সময়ের মধ্যে ডিন কার্যালয়ে জমা দিতে হবে। কারও ফলাফল নিয়ে সন্দেহ থাকলে তা নিরীক্ষার জন্য ফি দেওয়া সাপেক্ষে ৩ থেকে ৯ নভেম্বর পর্যন্ত কলা অনুষদের ডিন কার্যালয়ে জমা দিতে হবে।

গত ১ অক্টোবর ‘ক’ ইউনিট ও ২ অক্টোবর ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা নিয়েছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এবারই প্রথমবারের মতো ঢাকাসহ দেশের আটটি বিভাগীয় শহরের প্রধান বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা হয়। পরীক্ষাকে ঘিরে এবার কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

উচ্চশিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন