বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিমার আওতায় আনার মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীকে স্বাস্থ্য ও জীবনবিমা প্রকল্পের আওতায় আনা হলো। প্রতিবছর ভর্তির সময় শিক্ষার্থীদের এককালীন ২৭০ টাকা প্রিমিয়াম দিতে হবে। চলমান শিক্ষাবর্ষে ভর্তির সময় যেসব নিয়মিত শিক্ষার্থী বার্ষিক প্রিমিয়ামের টাকা দিতে পারেননি, তাঁরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে(https://student.eis.du.ac.bd) লগইন করে হেলথ ইনস্যুরেন্স বাটনে ক্লিক করে প্রিমিয়ামের টাকা জমা দিতে পারবেন। টাকা জমা দেওয়ার পর শিক্ষার্থীরা বিমা প্রিমিয়ামের একটি জমা রশিদ পাবেন। এটি তাঁদের সংরক্ষণ করতে হবে। বিমাসুবিধা দাবির ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের সঙ্গে প্রিমিয়ামের জমা রশিদ সংযুক্ত করতে হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, প্রত্যেক শিক্ষার্থী হাসপাতালে ভর্তির ক্ষেত্রে বার্ষিক সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা বিমাসুবিধা পাবেন। এর মধ্যে হাসপাতালে থাকাকালীন কেবিন বা ওয়ার্ডের ভাড়া, হাসপাতাল সেবা, অস্ত্রোপচারজনিত ব্যয়, চিকিৎসকের পরামর্শ ফি, ওষুধ ও পরীক্ষা-নিরীক্ষার বিল বাবদ দৈনিক সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার টাকা চিকিৎসা ব্যয় পাওয়া যাবে। বহির্বিভাগে চিকিৎসার ক্ষেত্রে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর জন্য বছরে ১০ হাজার টাকা বরাদ্দ রয়েছে। এর মধ্যে বহির্বিভাগে পরীক্ষা-নিরীক্ষার ব্যয় অর্ন্তভুক্ত থাকবে ও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ ফি বাবদ প্রতি ব্যবস্থাপত্রে সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা পাওয়া যাবে। কোনো শিক্ষার্থীর বয়সসীমা ২৮ বছর অতিক্রম করলে অথবা ছাত্রত্ব হারালে বিমাসুবিধা পাবেন না।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট (https://du.ac.bd) থেকে বিমাবিষয়ক সব শর্ত ও বিস্তারিত তথ্য জানা যাবে। ওয়েবসাইট থেকে শিক্ষার্থীরা বিমা ক্লেইম ফরম ও গ্যারান্টি পেমেন্ট রিকোয়েস্ট ফরম সংগ্রহ করতে পারবেন। বিমাবিষয়ক কাজের জন্য শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ বিভাগ ও ইনস্টিটিউটের কার্যালয়ে যোগাযোগ করতে হবে।

উচ্চশিক্ষা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন