শিক্ষামন্ত্রী আজ শুক্রবার জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল শিক্ষার প্রসারে দেশের বিভিন্ন জেলায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করছে। এতে নতুন প্রজন্মের মধ্যে বিজ্ঞানশিক্ষার প্রতি আগ্রহ তৈরি হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় উপাচার্য অধ্যাপক মো. নূরুল আলম বলেন, ‘পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের বিগত ৫০ বছরের অগ্রযাত্রায় আমরা গর্বিত। দেশ-বিদেশে এ বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও গবেষকেরা সাফল্য অর্জন করে বিভাগ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম বৃদ্ধি করেছেন।’ উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের বিবরণ তুলে ধরে বলেন, শিগগিরই ছাত্র ও ছাত্রীদের একটি করে নতুন দুটি হলের উদ্বোধন করা হবে। নতুন হলে শিক্ষার্থী ওঠানোর পর এ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘গণরুম’ সংস্কৃতি উঠে যাবে। উপাচার্য নতুন হলের নামকরণে প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ কামনা করেন।

জহির রায়হান মিলনায়তনে সকাল সাড়ে ১০টায় পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক তাহমিনা ফেরদৌসের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও বক্তৃতা করেন সহ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক শেখ মো. মনজুরুল হক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক ফরিদ আহমদ, পদার্থবিজ্ঞান অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অধ্যাপক এ এ মামুন ও সাধারণ সম্পাদক আজাদ আল মামুন।

এর আগে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সামনে শিক্ষামন্ত্রী বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে সুবর্ণজয়ন্তীর উদ্বোধন করেন। এ সময় ৫০ পাউন্ড ওজনের কেক কাটা হয়। এরপর এক বর্ণাঢ্য র‌্যালিসহ অতিথিরা জহির রায়হান মিলনায়তনে আলোচনা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। আলোচনা শেষে সেলিম আল দীন মুক্তমঞ্চে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা স্মৃতিচারণা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মেতে ওঠেন।