৬৪তম আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডের পরীক্ষা শেষ, অপেক্ষা ফলাফলের

পরীক্ষা হ‌লের বাই‌রে অপেক্ষায় বি‌ভিন্ন দে‌শের গাইড
ছবি: প্রথম আলো

সাড়ে চার ঘণ্টার পরীক্ষা। বাংলাদেশের মাধ্যমিক কিংবা উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার ক্ষেত্রে দুই–তিন ঘণ্টার মধ্যে পরীক্ষা শেষ হয়ে যায়। সেখানে সাড়ে চার ঘণ্টা পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডের মূল পর্বে। আজ রোববার বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা দ্বিতীয় ও শেষ দিনের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। দ্বিতীয় দিনের পরীক্ষায় বীজগণিত, কম্বিনেটরিকস ও জ্যামিতির ওপর তিনটি গাণিতিক সমস্যা সমাধান করেন প্রতিযোগীরা।

আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডের প্রশ্ন সময়ের সঙ্গে যে বদলে যাচ্ছে, তা–ই জানালেন শিক্ষার্থীরা। গতবারের চেয়ে এবারের প্রশ্ন যেমন ভিন্ন ছিল, তেমনি সমাধানে আলাদা কৌশল ব্যবহার করেছেন শিক্ষার্থীরা, এমনটাই জানিয়েছেন।‌ একইভাবে গতকাল শনিবার প্রথম দিনের পরীক্ষায় তিনটি সমস্যা সমাধান করতে হয়েছিল। সব মিলিয়ে ছয়টি সমস্যা সমাধান করতে দেওয়া হয়েছে দুই দিনে। আগামীকাল থেকে সব উত্তরপত্রের মূল্যায়ন করা হবে। প্রতিটি উত্তরপত্র আলাদাভাবে প্রতিযোগী দেশের দলনেতা ও আয়োজকদের পক্ষে একদল মূল্যায়নকারী মূল্যায়ন করবে। এরপর উভয় পক্ষের সম্মতিতে প্রাপ্ত নম্বর চূড়ান্ত করা হবে। ১২ জুলাই ফলাফল ঘোষণার মাধ্যমে সমাপ্তি ঘটবে এবারের আয়োজনের।

এবারের গণিত অলিম্পিয়াডে বাংলাদেশ দলের সদস্যরা হলেন ঢাকা কলেজের এস এম এ নাহিয়ান, রংপুরের আরসিসিআই পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের শাহরিয়ার হোসেন, ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নুজহাত আহমেদ, চট্টগ্রামের ইস্পাহানি পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের জিতেন্দ্র বড়ুয়া, ময়মনসিংহের আনন্দ মোহন কলেজের দেবপ্রিয় সাহা রায় ও কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের ইমাদ উদ্দীন আহমাদ।

পরীক্ষা শেষে শিক্ষার্থীরা
ছবি: প্রথম আলো

পরীক্ষা শেষ করেই ঘুম

টানা দুই দিনের পরীক্ষার উত্তেজনা আর রোমাঞ্চ অবশেষে শেষ হলো। পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা শেষ করেই সমুদ্র তীরে না গিয়ে সবাই ছুটে যান যাঁর যাঁর রুমে। টানা দুই দিনের পরীক্ষার ধকল কয়েক ঘণ্টা ঘুমিয়ে পার করার চেষ্টা করেন সবাই। ‌ঘুম শেষেই সবাই আবার দৌড় দেন গেমস জোনে। গণিত অলিম্পিয়াড যে আসলে শিক্ষার্থীদের বৈশ্বিক নেটওয়ার্কের একটা মাধ্যম‌, তা আসলে পরীক্ষার কেন্দ্র আর গেমস জোন দেখলে বোঝা যায়। বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নেদারল্যান্ডস, নিউজিল‌্যান্ড, আলবেনিয়া কিংবা ইন্দোনেশিয়ার শিক্ষার্থীদের আলাপ–আলোচনা বেশ জমতে দেখা যায়। গণিতের সমস্যাসহ নানা বিষয়ে আলাপ চলে তাঁদের।

ডিজনিল্যান্ডের ডাক

দুই দিনের পরীক্ষার ধাক্কা কাটিয়ে শিক্ষার্থীদের আনন্দ দেওয়ার জন্য আগামীকাল সোমবার (১০ জুলাই) নিয়ে যাওয়া হবে টোকিওর ডিজনিল্যান্ডে। টোকিও ডিজনিল্যান্ড এশিয়ার বিখ্যাত ডিজনিল্যান্ডগুলোর একটি। এরই মধ্যে কোন রাইডে চড়বেন শিক্ষার্থীরা, তা ‌নি‌য়ে চল‌ছে আলোচনা।

আরও পড়ুন

জাপানি খাবারের অনন্য স্বাদ

দেশে থাকতে জাপানিজ খাবার মানেই শুধু শুনতাম সুশী। জাপানি খাবারদাবার অনেকটা আমাদের দেশের মতোই। এর আগে গণিত অলিম্পিয়াডে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে যাওয়ার কারণে নিজের দেশের খাবারদাবারকে শিক্ষার্থীরা ভীষণ মিস করতেন।

জাপানিরা আমাদের মতোই ভাত খায়, তবে সেই ভাতটা একটু আঠালো। ভাতের সঙ্গে salmon আর টুনা মাছসহ নানা পদের সবজি সালাদ তো থাকছেই। আমাদের মতো মসলা দিয়ে মাখানো খাবার কম খায় জাপানিরা। আর দেখেছি প্রচুর স্যুপ কিংবা জুসজাতীয় খাবার খেতে।

বাংলা‌দেশ গ‌ণিত দ‌লের ছয় সদস‌্য
ছবি: প্রথম আলো

উন্নত সড়ক সেখানে প্রযুক্তিবান্ধব

জাপানের সব কিছুতেই যেন প্রযুক্তির ছোঁয়া। আমরা এরই মধ্যে জাপানি বাস আর মেট্রো ট্রেন দেখেছি। ভীষণ পরিষ্কার। রাস্তাঘাটে অনেক ব্যস্ত থাকলেও নেই কোনো যানজট কিংবা হর্ন। সব যাত্রীর ভীষণ আনন্দ নিয়ে সুন্দর পরিবেশে খুব সাবলীলভাবে চলার সুযোগ আছে জাপানে। অধিকাংশই জাপানের জাপানি ভাষায় কথা বলেন।

ইংরেজি খুব একটা ব্যবহার করেন না। জাপানে প্রচুর বাংলাদেশি শিক্ষার্থী ও গবেষক নানা বিশ্ববিদ্যালয় পড়ছেন। আমাদের এমনই কয়েকজন শিক্ষার্থী ও গবেষকের সঙ্গে পরিচয় হয়েছে। গবেষণার সুযোগ ও উন্নত ল্যাবরেটরির কারণে পৃথিবীর নানা দেশের শিক্ষার্থীরা জাপানে পড়তে আসেন।

উল্লেখ্য, ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের পৃষ্ঠপোষকতায় ও প্রথম আলোর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় দেশব্যাপী গণিত অলিম্পিয়াড আয়োজন করা হয়। সেখান থেকে ৬৪তম আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডের জন্য ছয় সদস্যের বাংলাদেশ গণিত দল নির্বাচন করা হয়। দল নির্বাচন ও এর আনুষঙ্গিক আয়োজন করেছে বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটি।