default-image

অনন্য সুন্দর দেশ আয়ারল্যান্ড। ইউরোপ মহাদেশের অন্তর্ভুক্ত দেশটি মহাদেশটির উত্তর-পশ্চিম প্রান্তে। আয়ারল্যান্ড দ্বীপের বড় অংশজুড়ে আয়ারল্যান্ড রিপাবলিক দেশটি (দ্বীপের বাকি অংশের নাম নর্দান আয়ারল্যান্ড, যেটি ব্রিটেনের অংশ)। প্রায় ৪৬ লাখ জনসংখ্যার দেশটিতে ছোট পাহাড়, সবুজ সমতলভূমি, আছে সবই। ইউরোপের একটি বড় অর্থনৈতিক শক্তিও দেশটি। বর্ণিল সংস্কৃতি, ঐতিহ্য, আধুনিক জীবনযাত্রা সবাই আছে এখানে। উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রেও দেশটির প্রচুর সুনাম। বিশেষ করে আয়ারল্যান্ডে আইন বিষয়ে উচ্চশিক্ষা নেওয়া শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে ক্যারিয়ার গঠনের ভালো সুযোগ। দেশ‌টির সরকা‌রি ভ‌াষা আইরিশ, ইং‌রে‌জি। বিদেশি শিক্ষার্থীদের সব সময়ই স্বাগত জানাতে প্রস্তুত দেশটির শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো।

আইন বিষয়ে ডিগ্রিধারী সবাইকে যে আইনজীবী বা আদালত পাড়ার কর্মকর্তা হতে হবে তেমন কোনো কথা নেই। এই বিষয়ে পড়াশোনা করে ক্যারিয়ার গড়ার রয়েছে বিশাল সু‌যোগ। আইনের শিক্ষার্থীরা বিশ্লেষণ, গবেষণা ও যুক্তির ওপর দক্ষ হয়ে থাকেন। যেকোনো সমস্যার সৃষ্টিশীল সমাধান খুঁজে পান তাঁরা।

পশ্চিমা টিভির অনুষ্ঠানমালাসহ ব‌লিউড ছবি দেখলে মনে হয় আইন শিক্ষা শুধু অপরাধীদের বিচার কিংবা আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বিষয়ের জন্য; কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে অপরাধ আইন এই বিভাগের একটি শাখা মাত্র। বেশির ভাগ আইনই এর চেয়ে অনেক বেশি বাস্তব জীবনের সঙ্গে সম্পৃক্ত। বেশির ভাগ আইন কর্মকর্তা ও ব্যারিস্টাররা সম্পত্তি আইন, পারিবারিক আইন, কোম্পানি আইন, ব্যাংকিং আইন, মেধাসম্পত্তি আইন, ট্যাক্স, শ্রম কিংবা বাণিজ্য আইন নিয়ে কাজ করেন। বর্তমান বিশ্বে আইন পেশার র‌য়ে‌ছে বিশাল ক্ষেত্র।
কোথায় পড়বেন

বিজ্ঞাপন

আয়ারল্যান্ডে অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আছে, যারা আইন বিষয়ে ডিগ্রি দিয়ে থাকে (গ্র্যাজুয়েশন ও পোস্ট গ্র্যাজুয়েশন)। তাদের মধ্যে ট্রিনিটি কলেজ, ইউনিভার্সিটি কলেজ ডাবলিন, গ্যালওয়ের ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব আয়ারল্যান্ড, ইউনিভার্সিটি কলেজ কর্ক, ময়নুথ ইউনিভার্সিটি, ইউনিভার্সিটি অব লিমেরিক উল্লেখযোগ্য।

বেসরকারি গ্রিফিত কলেজের আইন ডিগ্রিরও সুনাম রয়েছে। এর বাইরে ডাবলিন ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি, ওয়াটারফোর্ড ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি, লেটারকেনি ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি, ডাবলিন বিজনেস স্কুলসহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান আইন বিষয়ে ডিগ্রি দিয়ে থাকে। দেশটির তৃতীয় স্তরের কলেজগুলোতে আবার আইনের পাশাপাশি দ্বিতীয় একটি বিষয় বা ভাষার ওপর পড়াশোনারও সুযোগ রয়েছে। ইউনিভার্সিটি অব লিমেরিকের ল’ প্লাস ডিগ্রি এ ক্ষেত্রে খুব জনপ্রিয়। এখানকার শিক্ষার্থীদের আইনের পাশাপাশি মনোবিজ্ঞান, অর্থনীতি, সমাজবিজ্ঞান, ইতিহাস, রাষ্ট্রবিজ্ঞান কিংবা আইরিশ বা অন্য কোনো ইউরোপীয় ভাষাকে পাঠ্য হিসেবে বেছে নেওয়ার সুযোগ রয়েছে। আবার ইউনিভার্সিটি কলেজ ডাবলিনে ল’ অ্যান্ড বিজনেস ডিগ্রিতে শিক্ষার্থীদের আগ্রহ বেশি থাকলেও এখানে ল’ অ্যান্ড চায়নিজ স্টাডিজ, ল’ উইথ ফ্রেঞ্চ ল’, ল’ অ্যান্ড ফিলোসফি ইত্যাদি বিষয়েও পড়ার সুযোগ রয়েছে।

default-image

ডাবলিন সিটি ইউনিভার্সিটিতে আইন শিক্ষার ওপর অনেকগুলো উদ্ভাবনী ও আকর্ষণীয় কোর্স রয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ব্যাচেলর অব সিভিল ল’—যাতে শেখানো হয় কীভাবে আইনি প্রক্রিয়াগুলো কাজ করে এবং আইন কীভাবে সমাজ দ্বারা প্রভাবিত হয়। সাংবিধানিক আইন, চুক্তি আইন, অপরাধ আইনের মতো মৌলিক বিষয়গুলো যুক্ত রয়েছে এই কোর্সে। এ ছাড়া এই প্রতিষ্ঠানে আইন, অর্থনীতি ও রাজনীতির ওপর সমন্বিত ডিগ্রি নেওয়ার ব্যবস্থাও রয়েছে, যাতে একজন শিক্ষার্থী আইনের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক রাজনীতি ও সরকার ব্যবস্থার ওপর জ্ঞান অর্জন করতে পারবেন।

ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ

আইন বিষয়ে উচ্চশিক্ষা নিলেই যে আইনজীবী হওয়া যায় তেমনটি নয়। এরপর আইনজীবী হতে হলে অবতীর্ণ হতে হয় পরবর্তী পরীক্ষায়। কাজেই নতুনদের জন্য আইনজীবী হিসেবে কাজ শুরুর জন্য পার হতে হয় আরও একটি ধাপ। তবে সেটি খুব কঠিন কোনো পদক্ষেপ নয়। তা ছাড়া আয়ারল্যান্ডের আইন ডিগ্রি নিয়ে এ দেশে যেমন ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ রয়েছে তেমনি উন্নত বিশ্বের যেকোনো দেশে গ্রহণযোগ্য এসব ডিগ্রি। প্রাথমিক অবস্থায় আইনজীবী হিসেবে কাজ শুরু করা তরুণদের কিছুটা কঠিন সময় পার করতে হয়। তবে পরিচিতি ও সুনাম ছড়াতে শুরু করলে দ্রুত ওপরে ওঠা যায়।

এখা‌নে ওকালা‌তি পেশার সঙ্গে জ‌ড়িত হ‌তে হ‌লে কী কর‌তে হ‌বে, সেগু‌লোর বিস্তা‌রিত তথ‌্য ‘দ‌্য ল সোসাই‌টি অব আয়ারল‌্যা‌ন্ড’–এর ও‌য়েবসাইট থে‌কে যে কেউ জে‌নে নি‌তে পার‌বেন খুব সহ‌জে। (The law society of ireland)

বিজ্ঞাপন

আইন পেশার বাইরে অনেক প্রতিষ্ঠান আইন বিষয়ে ডিগ্রি নেওয়া তরুণদের চাকরির সুযোগ দিয়ে থাকে, তাঁদের দক্ষতা আর বুদ্ধিদীপ্ততার কথা মাথায় রেখেই। তাঁদের বেশির ভাগই প্রতিষ্ঠানের আইন কর্মকর্তা হিসেবে কাজ শুরু করেন। আইন কর্মকর্তারা প্রতিষ্ঠানের যেকোনো আইনি জটিলতায় আদালতের মুখোমুখি হওয়ার আগে কাগজপত্র প্রস্তুত করাসহ যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেন।
এ ছাড়া অনেকে অবশ্য ব্যাংকিং, ট্যাক্সসহ অন্যান্য খাতেও চাকরি খুঁজে নেন। আইন পেশায় ডিগ্রি নেওয়াদের সরকারি চাকরি বা বেসরকারি কোম্পানিতে ভালো বেতনে চাকরি নিতেও দেখা যায়। এ ছাড়া নাগরিক অধিকার, মানবাধিকার ইত্যাদি বিষয় নিয়ে কাজ করে এমন প্রতিষ্ঠানগুলোতে চাকরির সুযোগ রয়েছে এসব পেশার ডিগ্রিধারী তরুণদের।

আয়রোজগার কেমন
আইন পেশায় উপার্জনের কোনো নির্দিষ্ট সীমারেখা নেই। আইনজীবীরা যত খ্যাতি অর্জন করবেন, তাঁদের ফি তত বাড়বে। তবে অন্যান্য দেশের মতো আয়ারর‌্যান্ডেও তরুণ অবস্থায় উপার্জনের হার কম থাকে। ত‌বে পুরোনো হ‌য়ে গে‌লে উপার্জনও বা‌ড়ে।
আয়ারল্যান্ডের ক্যারিয়ারবিষয়ক ওয়েবসাইট গ্রাডআয়ারল্যান্ডের (gradireland) তথ্যমতে, দেশটিতে অভিজ্ঞ ব্যারিস্টাররা বছরে ৫৫ হাজার থেকে শুরু করে ১ লাখ ১০ হাজার ইউরো পর্যন্ত আয় করতে পারেন। তবে কোনো কোনো আইনজীবীর উপার্জন তিন লাখ ইউরো পর্যন্ত র‌য়ে‌ছে।

মাঝারি মানের কোম্পানিগুলোতে এক বা দুই বছরের অভিজ্ঞ আইন কর্মকর্তারা গড়ে ৪০ হাজার ইউরো উপার্জন করেন। ডাবলিন কিংবা আশপাশের এলাকাগুলোতে অবশ্য উপার্জনের হার কিছুটা কম। আর বড় প্রতিষ্ঠানের অভিজ্ঞ আইন কর্মকর্তা বছরে এক থেকে দেড় লাখ ইউরো পর্যন্ত উপার্জন করতে পারেন।

বৃত্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন